• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বিহারে বৃষ্টিতে মৃত ২৫, ভাসছে হাসপাতালও

Bihar
পুরসভার মাটি বহনের যন্ত্রের সাহায্যে বন্যা দুর্গতদের উদ্ধারে নেমেছে বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। একই সঙ্গে তাঁদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে খাবার এবং প্রয়োজনীয় ত্রাণসামগ্রী। সোমবার পটনায়। ছবি: পিটিআই

Advertisement

সপ্তাহব্যাপী টানা বৃষ্টিতে বিহারে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২৫। জল জমে বেহাল পটনার পথঘাট। বিপর্যস্ত ট্রেন চলাচল। জলের তলায় উপমুখ্যমন্ত্রী সুশীল মোদীর বাড়িও। আজ সকালে জলমগ্ন বাড়ি থেকে তাঁকে উদ্ধার করা হয়। বিপর্যয় মোকাবিলা দফতর জানিয়েছে, শুধু গয়াতেই প্রাণ হারিয়েছেন ৬ জন। তার মধ্যে পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে দেওয়াল চাপা পড়ে। আর এক জনের নদীতে ডুবে। জহানাবাদ শহরে একটি পুরনো বাড়ির দেওয়াল ধসে মৃত্যু হয়েছে তিন বছরের শিশুর। জলমগ্ন এলাকায় ত্রাণসামগ্রী পৌঁছনোর জন্য সেনাবাহিনীর কাছে হেলিকপ্টার পাঠানোর আর্জি জানানো হয়েছে। 

আজ সকাল থেকে আর বৃষ্টি না হওয়ায় খানিকটা স্বস্তির শ্বাস ফেলেছেন পটনাবাসী। এর মধ্যেই বাড়ির পোশাকে দিনভর বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের আধিকারিকদের সঙ্গে শহরে চক্কর কেটেছেন সুশীল মোদী। দেরিতে হলেও প্লাস্টিকের প্যাকেট ও আবর্জনা জমে আটকে যাওয়া নালাগুলির মুখ পরিষ্কার করতে দেখা গিয়েছে পটনা নগর নিগমের কর্তাদের। আগামিকাল পর্যন্ত পটনার সব স্কুল বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন। যে স্কুল এই নির্দেশ মানবে না তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে। গঙ্গার জলস্তর বিপজ্জনক ভাবে বেড়ে যাওয়ায় গত ২১ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রিন্সিপাল সেক্রেটারির সঙ্গে কথা বলেছিলেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। বন্যা কবলিত এলাকাগুলিতে উদ্ধারকাজ চালানোর জন্য জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর ১৯টি দল নামানো হয়েছে।

এরই মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিয়োতে দেখা গিয়েছে, গলা জলের মধ্যে দিয়ে নিজের যানটিকে টেনে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন এক রিক্সাচালক। জলের তোড়ে আর এগোচ্ছে না রিক্সাটি। রুটিরুজির একমাত্র উপায় রিক্সাটি নিয়ে এমন বিপদে পড়ায় কেঁদে ফেলেছেন ওই চালক। ভিডিয়োয় শোনা গিয়েছে, রাস্তা সংলগ্ন বাড়ি থেকে এক দম্পতি তাঁকে পরামর্শ দিচ্ছেন রিক্সাটি ওখানেই রেখে যাওয়ার। আশ্বাস, জল না নামা পর্যন্ত সেটি পাহারা দেবেন তাঁরা। পটনার নালন্দা মেডিক্যাল কলেজ-সহ আরও বেশ কয়েকটি হাসপাতাল বন্যায় ভেসে গিয়েছে। শহরের জলমগ্ন এলাকাগুলিতে উদ্ধারকাজ চালানোর জন্য ৩২টি নৌকা নামানো হয়েছে। বৃষ্টিতে লাইনে জল জমায় বহু ট্রেন বাতিল হয়েছে বহু ট্রেন।

বন্যায় ভাসছে উত্তরপ্রদেশও। জল ঢুকে যাওয়ায় আজ বালিয়ার একটি জেল থেকে প্রায় ৫০০ জন বন্দিকে আজ়মগড়ের একটি জেলে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। বাকি ৩৬৩ জন বন্দিকে অম্বেডকর নগরের একটি জেলে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। বালিয়ার অতিরিক্ত জেলাশাসক জানিয়েছেন, জেলটির বাইরেও বন্যার জল জমে থাকায় পাম্প করে জল বাইরে বার করা যাচ্ছে না। কারা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, জল নামলেই বন্দিদের ফিরিয়ে আনা হবে। 

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন