মুম্বই বিমানবন্দরের মূল রানওয়ে চালু হতে এখনও ৪৮ ঘণ্টা লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ। সোমবার রাত পৌনে ১২টা নাগাদ অবতরণের সময়ে রানওয়েতে পিছলে যায় জয়পুর থেকে আসা স্পাইসজেটের একটি বিমান। তার পর থেকে ওই রানওয়ে বন্ধ। গত দু’দিনের টানা বৃষ্টিতেই ওই বিপত্তি। বিমানে ১৬৭ জন আরোহী ছিলেন। তাঁদের বিশেষ ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। দ্বিতীয় রানওয়েটি চালু থাকলেও বিমান চলাচল স্বাভাবিক হয়নি। ইতিমধ্যেই বাতিল হয়ে গিয়েছে ২০৩টি উড়ান। দ্বিতীয় রানওয়ে দিয়ে আন্তর্জাতিক বিমানগুলি যাতায়াত করতে পারছে না। কারণ সেটি যথেষ্ট প্রশস্ত না হওয়ায় বড় বিমান ঢুকতে পারে না। বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, এখন রানওয়ের শেষপ্রান্তে আটকে রয়েছে স্পাইসজেটের বিমানটি। সেটিকে সরানোর জন্য ১৫০ মিটারের একটি র‌্যাম্প তৈরি করা হয়েছে।

রানওয়ে বন্ধ থাকায় মুম্বই থেকে ও মুম্বইগামী ১০টি বিমান বাতিলের কথা জানিয়েছে উড়ান সংস্থা ভিস্তারা। এর মধ্যে রয়েছে দিল্লি, হায়দরাবাদ, কলকাতা, বেঙ্গালুরু ও চেন্নাইয় থেকে আসা বিমান। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাদের উড়ানের খবরাখবর জানাচ্ছে স্পাইস জেট ও ইন্ডিগোর মতো সংস্থাগুলি। বিমানবন্দরে আসার আগে সেই খবরে চোখ রাখতে অনুরোধ করা হচ্ছে যাত্রীদের। আজ ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছে সোল থেকে মুম্বইগামী একটি কোরিয়ান উড়ান সংস্থার বিমান। ফ্রাঙ্কফ্রুট থেকে আসা একটি লুফৎহানসার বিমান ও ব্যাঙ্কক থেকে মুম্বইগামী এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানও ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তিন কাকাকে নিয়ে দিল্লি থেকে মুম্বইয়ে যাচ্ছিলেন অভিনেতা রণদীপ হুডা। তাঁদের বিমানটিকে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে নাগপুরে। তিনি টুইট করেছেন, ‘‘বিমান ঘুরিয়ে নাগপুরে পাঠানো হয়েছে। বিমান বসে... কোথাও যাওয়ার নেই...দারুণ অ্যাডভেঞ্চার।’’