গতকাল শপথ নেওয়ার পরই স্থির হয়েছিল আজ সুযোগ এলে জিরো আওয়ারে নিজেদের নির্বাচনী ক্ষেত্রের সমস্যা নিয়ে লোকসভায় সরব হবেন মিমি চক্রবর্তী এবং নুসরত জহান। আজ যথাক্রমে যাদবপুর এবং বসিরহাটের দু’টি সমস্যা নিয়ে সাংসদ হিসেবে নিজেদের প্রথম বক্তৃতা দিলেন দুই অভিনেত্রী। 

মিমির কথায়, ‘‘আমার নির্বাচনী এলাকার চম্পাহাটি রেলস্টেশনে কোনও ওভারব্রিজ নেই। অসম্ভব যানজট হয়। সমস্যায় পড়েন ছাত্র, চিকিৎসাপ্রার্থীরা।’’ সোনারপুর, বিদ্যাধরপুরেও রেলওয়ে লেভেল ক্রসিং না থাকার কথা তুলে কেন্দ্রকে এ ব্যাপারে উদ্যোগী হতে অনুরোধ করেন তৃণমূলের নবাগতা সাংসদ। 

পাশাপাশি নুসরত বলেন, ‘‘বসিরহাটে একটিও কেন্দ্রীয় বিদ্যালয় নেই। এটি সীমান্ত এলাকা। কেন্দ্রীয় বাহিনীর বহু বর্তমান এবং প্রাক্তন কর্মচারী এখানে থাকেন। তাঁদের ছেলেমেয়েদের যাওয়ার মতো কোনও স্কুল নেই।’’ তাঁর কথায় এলাকার দরিদ্র মানুষও বেসরকারি স্কুলে বাচ্চাদের পাঠাতে পারেন না। কেন্দ্রীয় বিদ্যালয় থাকলে সেই সমস্যার সমাধান হবে। আগামী শিক্ষাবর্ষের আগেই একটি স্কুল গঠনের দাবি জানান নুসরত।

নুসরত সম্পর্কে এ সব তথ্য জানতেন?