বরফের চাদর সরিয়ে অবশেষে উদ্ধার হল নিখোঁজ সেনার দেহ।

বৃহস্পতিবার বরফ ঘেরা কার্গিলে আচমকা তুষারধসে তলিয়ে যান দুই সেনা। সে দিন ১৭৫০০ ফুট উচ্চতায় একটি সেনা ছাউনিতে নজরদারির দায়িত্বে ছিলেন দুই জওয়ান। তুষারধসে চাপা পড়েন দু’জনেই। তাঁদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করে সেনাবাহিনী। শনিবার সেপাই সুজিত নামে এক জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করা গেলেও খোঁজ মেলেনি অন্য জওয়ান বিজয় কুমারের। সেনাবাহিনী জানিয়েছে, রবিবার কার্গিলের পাহাড়ি এলাকায় ১২ ফুট বরফের স্তর সরিয়ে পাওয়া গিয়েছে বিজয় কুমারের দেহ।

সেনা সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার সকালে কার্গিলে মৃদু ভূমিকম্প হয়। আর তার জেরেই নামে তুষারধস। আচমকা ধসে অন্তত ১৫ ফুট উঁচু বরফ জমেছিল ওই এলাকায়। কয়েক দিন ধরে আবহাওয়াও ছিল প্রতিকূল। তবু তার মধ্যেই চলছিল তল্লাশি। বরফের নীচে খোঁজ চালাতে বিশেষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কুকুর আনা হয়। ছিল অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি, বিশেষ ধরনের রেডার, মেটাল ডিটেক্টর ইত্যাদিও। এ সবের সাহায্যে এ দিন সকালে বরফের নীচ থেকে উদ্ধার হয় বিজয়ের দেহ। শ্রীনগর থেকে সেনাবাহিনী জানিয়েছে, তামিলনাড়ুর তিরুনেলভেল্লির গ্রামের বাড়িতে তাঁর দেহ পৌঁছে দেওয়া হবে। সেনার তরফে যথাযথ সম্মান দিয়েই শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে বিজয়ের। সেনাবাহিনীর উত্তরাঞ্চলের কম্যান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল ডি এস হুদা এ দিন বিজয়ের পরিবারকে শোকবার্তা পাঠান। দেশের হিমালয় সংলগ্ন এলাকায় তুষারধসে সেনার মৃত্যু নতুন নয়।