শিশুপুত্রের গায়ের রং ফর্সা করতে তার শরীরে কালো পাথর ঘষলেন মা। এর ফলে ক্ষত হয়ে গিেয়ছে শিশুটির শরীরের নানা অংশে। ঘটনা ভোপালের।

অভিযুক্ত সুধা তিওয়ারি পেশায় শিক্ষিকা। তাঁর স্বামী একটি বেসরকারি হাসপাতালে কাজ করেন। উত্তরাখণ্ডের মাত্রুছায়া নামের একটি অনাথ আশ্রম থেকে পাঁচ বছরের শিশুটিকে তাঁরা দত্তক নিয়েছিলেন বছর দেড়েক আগে। কিন্তু প্রথম থেকেই ছেলেটির গায়ের রং নিয়ে অখুশি ছিলেন ওই মহিলা। শিশুটির গায়ের রং উজ্জ্বল করতে একের পর এক উপায় ব্যবহার করেছিলেন তিনি। শেষে তাঁর কানে আসে, কালো পাথর দিয়ে গা ঘষলে গায়ের রং ফর্সা হবে। সেই মতো তিনি একটি কালো পাথর দিয়ে দিনের পর দিন শিশুটির শরীরের নানা অংশে ঘষতে থাকেন। শিশুটির ওপর চলতে থাকা এই অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে ঘটনাটি চাইল্ড লাইনে ফোন করে জানান ওই মহিলার বোনঝি। চাইল্ড লাইন ও নিশাতপুরা পুলিশ রবিবার শিশুটিকে উদ্ধার করে।

চাইল্ড লাইনের অধিকর্তা অর্চনা সহায় বলেন, ‘‘শিশুটিকে যখন ওর বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়, তখন তার সারা শরীরে ক্ষত চিহ্ন ছিল। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। তবে এখন সে বিপন্মুক্ত।’’ শিশুটিকে দত্তক দেওয়ার পর অনাথ আশ্রম কোনও খবর নেয়নি কেন, তা নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়তে হয় ওই প্রতিষ্ঠানকে। 

আরও পড়ুন: ঝাড়খণ্ডের এফএমে হাতি-সমাচার