ফাঁদে পড়ে ৯ লক্ষ টাকা গেল প্রৌঢ়ের। সোশ্যাল মিডিয়ায় মহিলার সঙ্গে বন্ধুত্ব পাতিয়েছিলেন। তাতেই কষ্টের রোজগার হারালেন তিনি।

৬৫ বছরের ওই প্রৌঢ় মুম্বইয়ের বাসিন্দা। একটি কোচিং সেন্টার চালান। অগস্ট মাসে ফেসবুকে লিওনি নামে এক মহিলার সঙ্গে পরিচয় হয়। জর্ডনের বাসিন্দা হিসাবে নিজের পরিচয় দেন ওই মহিলা। সেখানে একটি স্যালোঁ চালান বলে জানান। ক্রমশ ঘনিষ্ঠতা বাড়ে দু'জনের মধ্যে।

আলাপ জমে ওঠার কিছুদিন পর আচমকাই অমিত নামের এক ব্যক্তি ফোন করে ওই প্রৌঢ়কে। সে জানায়, ৭০ হাজার ডলার নিয়ে ভারতের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলেন লিওনি। দিল্লি বিমানবন্দরে তাঁকে আটক করেছেন অভিবাসী দফতরের আধিকারিকরা। ছাড় পেতে অবিলম্বে ২৪ হাজার টাকা দরকার। ছাড়া পেয়েই টাকা ফিরিয়ে দেবেন লিওনি।

আরও পড়ুন: ডাইনি সন্দেহে মহিলাকে পিটিয়ে মারল জনতা, গ্রেফতার দুই​

আরও পড়ুন: ফের মহার্ঘ রান্নার গ্যাস, দু’টাকা বেড়ে কলকাতায় দাম ৫১০ টাকা​

বিশ্বাস করে ওই মহিলার অ্যাকাউন্টে টাকা জমা দিয়ে জমা দিয়ে দেন তিনি। কিন্তু তারপরও টাকার দাবি আসতে থাকে। এ ভাবে তিনমাসে ৯ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা অজানা অচেনা ওই মহিলার অ্যাকাউন্টে জমা দেন।

সন্দেহ জাগায় সম্প্রতি বেশ কয়েকবার অমিতকে ফোন করেন তিনি। কিন্তু ফোন বন্ধ পান। তখনই টনক নড়ে তাঁর। শেষমেষ বুধবার কান্দিভালি থানায় ছুটে যান। লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে জালিয়াতি ও তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। শুরু হয়েছে তদন্ত।