গো-হত্যার অভিযোগে এক মুসলিম ব্যক্তিকে পিটিয়ে মারার অভিযোগ উঠল মধ্যপ্রদেশে। গত ১৭ মে ঘটনাটি ঘটে রাজ্যের সাতনা জেলায় আমগর গ্রামে।

পুলিশ জানিয়েছে, মৃতের নাম রিয়াজ (৪৫)। তাঁর সঙ্গী শাকিলকেও বেধড়ক মারা হয়। গুরুতর জখম হয়ে হাসপাতালে ভর্তি তিনি। চিকিত্সকরা জানিয়েছেন, শাকিল কোমায় চলে গিয়েছেন।

ঠিক কী হয়েছিল?

বৃহস্পতিবার রাতে বাড়ি ফিরছিলেন দুই গ্রামবাসী। সে সময় তাঁরা দেখতে পান এক দল লোক একটি মৃত গরু নিয়ে যাচ্ছে। সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয়দের কাছে খবর পৌঁছে যায়। ঘটনাস্থলে গ্রামবাসীরা পৌঁছলে তাঁদের দেখে পালিয়ে যান বেশ কয়েক জন। তবে ধরা পড়ে যান রিয়াজ ও শাকিল। তার পরই শুরু হয় বেদম মার। অভিযোগ, রড, লাঠি, পাথর দিয়ে ওই দু’জনকে এলোপাথারি মারা হয়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় রিয়াজের। গুরুতর জখম হন শাকিল।

আরও পড়ুন: সমঝোতা পাকা, কর্নাটক মন্ত্রিসভায় কংগ্রেস ২০, জেডি(এস) ১৩

আরও পড়ুন: কর্নাটকের রাজ্যপালকে ‘অনুগত কুকুর’ বলে টুইট, বিতর্কে কংগ্রেস নেতা সঞ্জয় নিরুপম

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে বিশাল পুলিশ বাহিনী পৌঁছয়। আসেন পুলিশের শীর্ষ কর্তা এবং মহকুমা শাসক। শীর্ষ পুলিশ আধিকারিক রাজেশ হিঙ্গানকার জানিয়েছেন, ঘটনাস্থল থেকে প্যাকেটভর্তি মাংস উদ্ধার হয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে চার জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানান তিনি। বাকিদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ।

গো-হত্যার অভিযোগে শাকিলের বিরুদ্ধে একটি মামলা রুজু করে পুলিশ। যদিও শাকিল ও রিয়াজের পরিবার গো-হত্যার অভিযোগকে সম্পূর্ণ খারিজ করে দেয়।