• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

সনিয়াজির মতো বড় নয় হৃদয়: নির্ভয়ার বাবা

nirbhaya parents
নির্ভয়ার বাবা-মা। ফাইল চিত্র।

Advertisement

নির্ভয়া মামলায় চার দণ্ডিতের ফাঁসি পিছিয়ে যাওয়ায় শুক্রবার টেলিভিশন চ্যানেলের সামনেই কাঁদতে কাঁদতে ভেঙে পড়েছিলেন নির্ভয়ার মা। এ দিনই তাঁর কাছে ধর্ষকদের ক্ষমা করার আর্জি জানিয়ে তোপের মুখে পড়লেন প্রবীণ আইনজীবী ইন্দিরা জয়সিংহ। শনিবার সাংবাদিকদের সামনে এ নিয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়েন নির্ভয়ার বাবা-মা বদ্রীনাথ ও আশাদেবী। ক্ষুব্ধ আশাদেবী বলেন, ‘‘ধর্ষকদের পক্ষ নিয়েই ওঁদের (ইন্দিরা জয়সিংহ) রোজগার হয়। তাই ধর্ষণের ঘটনা ভারতে বন্ধ হয় না।’’

শুক্রবার টুইটারে নির্ভয়ার মাকে উদ্দেশ্য করে ইন্দিরা বলেছিলেন, ‘‘আমরা আপনার কষ্ট বুঝতে পারছি। আপনার সঙ্গেই রয়েছি, তবে ফাঁসির বিরোধী। সনিয়া গাঁধী যেমন রাজীব গাঁধীর আততায়ী নলিনীকে ক্ষমা করেছিলেন, তেমন নির্ভয়ার মায়েরও উচিত ধর্ষকদের ক্ষমা করে দেওয়া।’’ এ দিন জবাবে ক্ষুব্ধ বদ্রীনাথ বলেছেন, ‘‘আমরা সাধারণ মানুষ, রাজনীতিবিদ নই। আমাদের হৃদয় সনিয়া গাঁধীর মতো বড় নয়।’’ তাঁর দাবি, ‘‘উনি (ইন্দিরা) নিজেও এক জন মহিলা। এই ধরনের মন্তব্যের জন্য ওঁর লজ্জিত হওয়া উচিত। নির্ভয়ার মায়ের কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত।’’

ইন্দিরার বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন আশাদেবীও। তিনি বলেছেন, ‘‘কে ইন্দিরা জয়সিংহ? উনি আমাকে পরামর্শ দেওয়ার কে? গোটা দেশ যখন ধর্ষকদের ফাঁসি চাইছে, তখন বুঝতে পারছি, ওঁর (ইন্দিরা) মতো কয়েক জনের জন্যই ধর্ষিতারা এ দেশে ‌যথাযথ বিচার পান না।’’

নির্ভয়ার বাবা-মা জানিয়েছেন, টানা সাত বছর ধরে মামলা চলার সময়ে সুপ্রিম কোর্টে ইন্দিরা জয়সিংহের সঙ্গে তাঁদের বেশ কয়েক বার দেখা হয়েছে। কিন্তু কী ভাবে তাঁরা দিন কাটাচ্ছেন, এক বারও তা জানতে চাননি প্রবীণ আইনজীবী।

২০১২ সালে দিল্লিতে ২৩ বছরের নির্ভয়াকে ধর্ষণ ও খুনের দায়ে মুকেশ সিংহ, বিনয় শর্মা, অক্ষয়কুমার সিংহ ও পবন গুপ্তকে প্রাণদণ্ডাদেশ দিয়েছে আদালত। সেই আদেশ কার্যকর হবে ফেব্রুয়ারির ১ তারিখে।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন