• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

চিনা সেনাকে পড়া ধরার ঢঙে আলাপ জমালেন নির্মলা, দেখুন ভিডিও

Nirmala Sitharaman
নাথু লা-য় চিনা বাহিনীর উদ্দেশে হাত নাড়ছেন ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। ছবি: পিটিআই।

Advertisement

‘নমস্তে’ মানে কী? যেন প্রাইমারি স্কুলে পড়া ধরছেন দিদিমনি।

চিনা ‘ছাত্রের’ হিন্দি জানা নেই। ‘দিদিমনি’র পাশ থেকে একজন মানেটা বলে দেওয়ার চেষ্টা করলেন। সঙ্গে সঙ্গে ধমক— ‘দাঁড়ান, বলবেন না।’ চিনা ‘ছাত্র’ একটু বিড়ম্বনায় পড়লেন বটে, তবে বিরক্ত হলেন না। মুখে হাসি আর বেশ একটা চটপটে ভাব। কয়েক মুহূর্ত ভেবে নিয়ে আন্দাজে ঢিল ছুড়লেন। ‘আপনার সঙ্গে দেখা করে ভাল লাগল’— নমস্তে শব্দের অর্থ কি এটাই? প্রশ্ন ‘ছাত্রের’। ‘শিক্ষিকা’র পাল্টা প্রশ্ন— কারও সঙ্গে দেখা হলে চিনা ভাষায় প্রথমে কী বলা হয়? ‘ছাত্র’ বললেন, ‘নি হাও’। ‘শিক্ষিকা’ বুঝিয়ে দিলেন, চিনের ‘নি হাও’-ই হল ভারতের ‘নমস্তে’ (নমস্কার)।

‘শিক্ষিকা’র নাম নির্মলা সীতারামন, ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। আর ‘ছাত্র’ হলেন নাথু লা-য় ভারত-চিন সীমান্তে মোতায়েন চিনা বাহিনীর অফিসার। শনিবার সিকিমে ভারত-চিন সীমান্তবর্তী এলাকা পরিদর্শনে গিয়েছিলেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। নাথু লা-য় গিয়ে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী দেখেন সীমান্তের ও পার থেকে এক দল চিনা সৈন্য তাঁর ছবি তুলছেন। এটা দেখেই সীমান্তের বেড়ার দিকে আরও এগিয়ে যান নির্মলা সীতারামন। হাত নাড়েন চিনা বাহিনীর দিকে। ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর ঘরোয়া আচরণ দেখে বেশে আপ্লুতও হন চিনা বাহিনীর সদস্যরা।

চিনা বাহিনীর সঙ্গে ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর আলাপচারিতার সেই ভিডিও:

নির্মলা সীতারামন শনিবার একেবারে জিরো পয়েন্টে গিয়ে কথাবার্তা বলেন চিনা বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে। ইংরেজি বলতে জানেন এমন এক চিনা অফিসার নিজের বাহিনীর অন্য সদস্যদের পরিচয় করিয়ে দেন ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর সঙ্গে। সেই অফিসারকেই প্রথমে নমস্তে বলেছিলেন নির্মলা। তার পরই নমস্তে এবং নি হাও নিয়ে বিশদ আলাপচারিতা হয়। অবশেষে ঘটনাস্থলে উপস্থিত চিনা বাহিনীর প্রত্যেককে আলাদা আলাদা করে হাতজোড় করে নমস্তে বলেন ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। চিনারাও হাসি মুখে হাতজোড় করে নির্মলা সীতারামনকে ফিরতি-সৌজন্য দেখান।

আরও পড়ুন: স্বল্প নোটিসেই যুদ্ধে প্রস্তুত বায়ুসেনা, বার্তা বায়ুসেনা প্রধানের

আরও পড়ুন: উত্তর কোরিয়ার জন্য একটাই ওষুধ: ট্রাম্পের মন্তব্যে যুদ্ধের জল্পনা তুঙ্গে

ডোকলামে ভারত এবং চিনের টানাপড়েনের রেশ এখনও পুরোপুরি মিলিয়ে যায়নি। তার মধ্যেই খবর এসেছে, ডোকলাম থেকে ১০ কিলোমিটার দূরবর্তী চুম্বি উপত্যকায় রাস্তা চওড়া করছে চিন। ফলে ভারত-চিন সীমান্তে উত্তেজনা কিছুটা বহালই। তার মধ্যেই সীমান্ত পরিদর্শনে ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। নির্মলা সীতারামনের এই সীমান্ত সফরকে ঘিরে তাই সাজ সাজ রব ছিল নাথু লা-য়। কিন্তু প্রতিরক্ষা মন্ত্রী যে ভাবে আলাপচারিতায় মাতলেন চিনা বাহিনীর সঙ্গে, তাতে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান এবং পারস্পরিক শ্রদ্ধার বার্তাই দেওয়া গেল। মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন