• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মহারাষ্ট্রের মন্ত্রীর মুখে লোয়া মামলা

Court
প্রতীকী ছবি।

রাজ্যকে অন্ধকারে রেখে ভীমা-কোরেগাঁও মামলা জাতীয় তদন্তকারী সংস্থার (এনআইএ) হাতে চলে যাওয়ার পর আবারও বিচারক বি এইচ লোয়ার রহস্যজনক মৃত্যুর বিষয়টি ভাসিয়ে দিল মহারাষ্ট্র সরকার। তবে রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অনিল দেশমুখের এ বারের বক্তব্য: নতুন প্রমাণ নিয়ে কেউ আসছেন না। 

রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে রবিবার প্রশ্ন করা হয়, লোয়া মৃত্যুর মামলা কি নতুন করে খোলা হবে? জবাবে তিনি বলেন, ‘‘আমাকে কয়েক জন ফোন করেছিলেন, তাঁদের কাছে নতুন প্রমাণ আছে। তাঁদের জানিয়েছিলাম, এসে দেখা করতে পারেন। কিন্তু কেউ প্রমাণ নিয়ে আসেননি।’’ দেশমুখের এই বক্তব্যে অবশ্য স্পষ্ট নয়, ভয়ের চোটেই কি প্রমাণ নিয়ে আসতে পারছেন না কেউ? নাকি প্রমাণ নেই? কিন্তু আপাতত এ ভাবেই লোয়া-মৃত্যু প্রসঙ্গটি ফের ভাসিয়ে দিলেন মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী। 

সিবিআই বিশেষ আদালতের বিচারক লোয়ার যখন মৃত্যু হয়, সেই সময় তাঁর আদালতে শুনানি চলছিল গুজরাতের সোহরাবুদ্দিন শেখের ভুয়ো সংঘর্ষ মামলার। অমিত শাহ ছিলেন তাতে প্রধান অভিযুক্ত। যদিও লোয়া মৃত্যুর পর নতুন বিচারক অমিতকে বেকসুর ঘোষণা করেন। দু’দিন আগেই এনআইএ একতরফা ভাবে ভীমা-কোরেগাঁও মামলাটি নিজেদের হাতে নেয়। যা নিয়ে ক্ষুব্ধ রাহুল গাঁধীও। আজ উপমুখ্যমন্ত্রী অজিত পওয়ারও বলেছেন, কেন্দ্রের নিজের চরকায় তেল দেওয়া উচিত। যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোয় রাজ্যের সঙ্গে কথা বলে পদক্ষেপ করা জরুরি ছিল। 

আরও পড়ুন: মোদীকে সংবিধানের কপি পাঠাল কংগ্রেস

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন