তাঁকে সিবিআই হেফাজতে পাঠানো নিয়ে বিশেষ সিবিআই আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে নতুন মামলা করলেন পি চিদম্বরম। অভিযোগ, ওই রায়ে তাঁর সংবিধান প্রদত্ত ব্যক্তি স্বাধীনতার অধিকার ক্ষুণ্ণ হয়েছে। সোমবার সুপ্রিম কোর্টে এর শুনানি হবে।

এ দিকে বার কাউন্সিল চিদম্বরম ও তাঁর স্ত্রী নলিনী চিদম্বরমকে নোটিস পাঠিয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে এক সাংবাদিক বার কাউন্সিলে অভিযোগ জানিয়েছিলেন, চিদম্বরম ও নলিনী প্রবীণ আইনজীবীর কালো গাউন পড়ে নিম্ন আদালতে অভিযুক্ত হিসেবে হাজির হয়েছিলেন। প্রভাব খাটানোর চেষ্টায় ওই গাউনের অপব্যবহার করা হয়েছে কি না, তা জানতে ২৮ সেপ্টেম্বর বার কাউন্সিল চিদম্বরমদের তলব করেছে।

বিশেষ আদালত চিদম্বরমকে সিবিআই হেফাজতে পাঠানোর আগে দিল্লি হাইকোর্ট তাঁর আগাম জামিনের আর্জি খারিজ করে। চিদম্বরম সুপ্রিম কোর্টে করা নতুন মামলায় জানিয়েছেন, তাই তিনি বিশেষ সিবিআই আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে সরাসরি শীর্ষ আদালতে গিয়েছেন। গ্রেফতারের আগে বিশেষ সিবিআই আদালতের বিচারক প্রথমে তাঁর বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। পরে জামিনের আর্জি খারিজ করে তাঁকে সিবিআই হেফাজতে পাঠান। তার আগে দিল্লি হাইকোর্টের বিচারপতি সাত মাস রায় সংরক্ষিত রেখে তাঁর আগাম জামিনের আর্জি খারিজ করার পাশাপাশি তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যাসত্য নিয়ে মন্তব্য করেছেন। যা হাইকোর্টের এক্তিয়ারের বাইরে। শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট রায় দিয়েছে, ইডি আপাতত চিদম্বরমকে গ্রেফতার করতে পারবে না। চিদম্বরমের আইনজীবীরা মনে করছেন, সিবিআইয়ের আর্জি সত্ত্বেও গ্রেফতারির পরে দিল্লির হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে চিদম্বরমের মামলা সুপ্রিম কোর্ট উড়িয়ে দেয়নি। এটা প্রথম রাউন্ডে তাঁদের জয়।