এক সপ্তাহে দু’বার দেখা করতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আমেরিকায় নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত বুধবার এ খবর নিশ্চিত করলেন। তাঁর দাবি, ভারত ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কূটনৈতিক সম্পর্ক এই শতকের অন্যতম সম্ভাবনাময় কৌশলগত অংশীদারিত্বের উদাহরণ হতে চলেছে।

চলতি বছরে লোকসভা নির্বাচনে জিতে নরেন্দ্র মোদী দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করার পরে, ইতিমধ্যেই তাঁর সঙ্গে দু’বার দেখা হয়েছে ডোনাল্ড ট্রাম্পের। জাপানে জি২০ এবং ফ্রান্সে জি৭ সম্মেলনে কথাও হয়েছে দুই পক্ষের মধ্যে।

বুধবার ওয়াশিংটনে ভারতীয় রাষ্ট্রদূত হর্ষবর্ধন স্রিঙ্গলা হেরিটেজ ফাউন্ডেশন ও অবজার্ভার রিসার্চ ফাউন্ডেশনের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেন। সেথানেই তিনি বলেন, ‘‘চলতি সপ্তাহেই রাষ্ট্রপুঞ্জের অধিবেশনে যোগ দিতে আসছেন নরেন্দ্র মোদী। সেখানেই ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে দু’বার মুখোমুখি কথা হবে তাঁর। চার মাসে চারবার মুখোমুখি হচ্ছেন এই দুই রাষ্ট্রনেতা।’’

শনিবার হিউস্টন পৌঁছচ্ছেন নরেন্দ্র মোদী। রবিবার সেখানেই ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিনদের সভায় নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে এক মঞ্চ ভাগ করে নেবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। হোয়াইট হাউস এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘‘ভারত এবং আমেরিকার মধ্যে সম্পর্ক আরও মজবুত করার একটি বড় সুযোগ এই সমাবেশ।’’
 

আরও পড়ুন: প্রথম বার মুখোমুখি অমিত-মমতা, বৈঠক আর কিছুক্ষণ পরেই
আরও পড়ুন:‘অনন্য অভিজ্ঞতা’, প্রথম প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে দেশীয় প্রযুক্তির তেজসে উড়লেন রাজনাথ

তার পরেই দুজনের ফের দেখা হবে রাষ্ট্রপুঞ্জের অধিবেশনে। সংখ্যার দিক থেকে বিচার করলে, ডোনাল্ড ট্রাম্পের পূর্বসূরি বারাক ওবামা অনেকটাই এগিয়ে রয়েছেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার ব্যাপারে। তবে এত অল্প সময়ের মধ্যে দুই রাষ্ট্রনেতার চারবার দেখা করার রেকর্ড এই প্রথম।

দিন কয়েক আগেই মাসুদ আজাহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি হিসেবে ঘোষণা করেছে রাষ্ট্রপুঞ্জ। এই ঘটনাকে এই দুই রাষ্ট্রনেতার সম্পর্কের ফলশ্রুতি হিসেবেই দেখছেন হর্ষবর্ধন স্রিঙ্গলা। ভারত-মার্কিন কমিউনিকেশন কম্প্যাটিবিলিটি ও সিকিউরিটি এগ্রিমেন্ট (কমকাসা) এবং লজিস্টিক এক্সচেঞ্জ মেমোরান্ডাম অ্যাসোসিয়েশন (লেমোয়া)-কেও এই দৌত্যের সাফল্য হিসেবে চিহ্নিত করেছেন তিনি।