অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার কথা ছিল বেলা ১১.০৫ মিনিটে। পৌঁছে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু, বুধবার বজ্রবিদ্যুৎ-সহ প্রবল ঝড়বৃষ্টিই বাধ সাধল আইআইটি খড়্গপুরের ৬৪তম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে।

প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণেআসতে দেরি হয় রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের।প্রশাসনিক সূত্রে জানা গিয়েছে, আইআইটি-তে বেলা ১১টা নাগাদ পৌঁছনোর কথা ছিল রাষ্ট্রপতির।দিল্লি থেকে বিমানে রাষ্ট্রপতি কলাইকুণ্ডা বায়ুসেনা ঘাঁটিতে নামেন। প্রথমে ঠিক ছিল সেখান থেকে হেলিকপ্টারে খড়্গপুরে পৌঁছবেন। পাশাপাশি, খারাপ আবহাওয়ার জন্য বিকল্প ব্যবস্থাও ছিল। কিন্তু, সকাল থেকে আবহাওয়া খারপের কারণে কলাইকুণ্ডা থেকে সড়কপথেআইআইটি পৌঁছন রাষ্ট্রপতি।

নির্ধারিত সময়ের পরিবর্তে ১১টা ৩৫ নাগাদ শুরু হয়ে সমাবর্তনের অনুষ্ঠান। যদিও ততক্ষণে বাজ পড়ে নষ্ট হয়ে গিয়েছে অনুষ্ঠান সম্প্রচারের জন্য লাগানো বেশ কয়েকটি এলইডি টিভি। খারাপ হয়ে গিয়েছে সাউন্ড সিস্টেমও।

আরও পড়ুন: তারুরের ইংরেজি অ্যাকসেন্ট বুঝতেই পারলেন না পীযূষ গয়াল!

দেখুন ভিডিয়ো: লোকসভায় আচমকা আলিঙ্গন, ‘পাপ্পু’র বদলে মোদীকে ‘ঝাপ্পি’ রাহুলের​

এ দিন সমাবর্তন অনুষ্ঠানে খড়্গপুর আইআইটি-র প্রশংসা করেন রাষ্ট্রপতি। কিন্তু, আইআইটিতে ছাত্রী ভর্তির সংখ্যানিয়ে কিছুটা হতাশা উঠে আসে কোবিন্দের কথায়। তিনি বলেন, ‘‘২০১৭ সালে আইআইটিতে ভর্তি হওয়ার পড়ুয়াদের মধ্যে মাত্র ১৬ শতাংশ ছাত্রী। এই সংখ্যাটি খুবই হতাশাজনক। এমনটা হতে পারে না। এ রাজ্যে নারীরা নেতৃত্বের জায়গায় চলে গিয়েছে। আমার পাশেই এমন এক জন বসে রয়েছেন। ওঁর সঙ্গে দেখা হওয়াটাই আমার জন্য সব সময়ের আনন্দের।’’ মঞ্চে তখন রাষ্ট্রপতির পাশে বসে রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কোবিন্দের কথায় তাঁর মুখে তখন হাসি। এর আগেই নিজের ভাষণে আইআইটির ছাত্রছাত্রীদের ভূয়সী প্রশংসা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা।