টুইটারে আজ হাতেখড়ি হল প্রিয়ঙ্কা গাঁধী বঢরার। প্রথম দিনেই ফলোয়ারের সংখ্যা লক্ষাধিক। 

প্রিয়ঙ্কার সরাসরি রাজনীতিতে যোগদানের খবর কংগ্রেসের নেতা-কর্মীদের মধ্যে নতুন উদ্দীপনা তৈরি করেছে। টুইটারে সনিয়া-কন্যার যোগদানে নেটিজেন মহলে উৎসাহ চোখে পড়ার মতো। প্রথম এক ঘণ্টাতেই প্রিয়ঙ্কার ফলোয়ারের সংখ্যা ৪৫ হাজার ছাড়িয়ে যায়।

পূর্ব উত্তরপ্রদেশের দায়িত্বপ্রাপ্ত এআইসিসি-র সাধারণ সম্পাদক হওয়ার পর আজই হিন্দি বলয়ের সবচেয়ে বড় রাজ্যে রোড শো করলেন প্রিয়ঙ্কা। তার আগে বেলা ১১টা ৪৯ মিনিটে কংগ্রেসের টুইটার হ্যান্ডলে জানানো হয়, ওই টুইটারে আত্মপ্রকাশ করেছেন প্রিয়ঙ্কা। লেখা হয়, ‘‘শ্রীমতি প্রিয়ঙ্কা গাঁধী বঢরা এখন টুইটারে। আপনারা @প্রিয়ঙ্কাগাঁধী ফলো করতে পারেন।’’ রাত একটায় তাঁর ফলোয়ারের সংখ্যা ১ লক্ষ ২৮ হাজার ছাড়িয়ে যায়। তবে ওই সময় পর্যন্ত প্রিয়ঙ্কা কোনও টুইট করেননি। দাদা তথা কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গাঁধী, জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া, শচীন পাইলট, অশোক গহলৌত-সহ সাত কংগ্রেস নেতাকে এখনও ফলো করছেন তিনি। 

টুইটারে প্রিয়ঙ্কার ফলোয়ারের সংখ্যা যখন বাড়ছে, ঠিক তখনই মোদীর ফলোয়ারের সংখ্যা এক ধাক্কায় অনেকটা কমেছে। নিষ্ক্রিয় ও বন্ধ হয়ে যাওয়া অ্যাকাউন্টগুলি সরিয়ে দিচ্ছেন টুইটার কর্তৃপক্ষ। ফলে মোদীর ব্যক্তিগত টুইটার হ্যান্ডলে(@নরেন্দ্রমোদী) ২,৮৪,৭৪৬ জন ফলোয়ার কমেছে। তাঁর অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডল(@পিএমওইন্ডিয়া) হারিয়েছে ১,৪০,৬৩৫ জন ফলোয়ারকে। শুধু মোদী নন, রাহুলের টুইটার হ্যান্ডল (@রাহুলগাঁধী) ফলোয়ার হারিয়েছে ১৭,৫০৩ জন। টুইটার কর্তৃপক্ষের ঝাড়পোঁছে ফলোয়ার কমেছে মূলতঃ হাই-প্রোফাইলদেরই।