বান্দিপোরায় তিন বছরের মেয়ের ধর্ষণ ঘিরে কাশ্মীরে বিক্ষোভ তৃতীয় দিনে পড়ল। 

রবিবার বান্দিপোরার সুম্বলে এক নাবালিকার ধর্ষণের ঘটনা সামনে আসে। তার পরেই শুরু হয় বিক্ষোভ। গত কাল গোটা কাশ্মীর জুড়ে বিক্ষোভ হয়।

গত কাল বাহিনী-জনতা সংঘর্ষে ১২ জন আহত হন। তার পরে শ্রীনগরের জাডিবাল, হাসনাবাদ, আলমগরি বাজার ও অন্যান্য কয়েকটি এলাকায় জমায়েতের উপরে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল। কিন্তু আজ শ্রীনগরের অমর সিংহ কলেজ, বেমিনা কলেজ, ল’ কলেজের পড়ুয়ারা বিক্ষোভ দেখান। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, অমর সিংহ কলেজের পড়ুয়ারা ক্যাম্পাসে শান্তিপূর্ণ ভাবেই বিক্ষোভ দেখান। কিন্তু তাঁরা রাস্তায় বেরোতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। তার জেরে পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথর ছোড়া হয়। পরিস্থিতি সামলাতে কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে পুলিশ। শ্রীনগরের প্রেস এনক্লেভেও বিক্ষোভ দেখান পড়ুয়ারা। হাওয়াল এলাকার বাসিন্দা লাদাখিরাও এ দিন বিক্ষোভে শামিল হয়েছেন।

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

তবে এই ঘটনাকে ঘিরে চলা বিক্ষোভের মধ্যে বৃহত্তর ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছেন রাজ্যপাল সত্যপাল মালিকের প্রশাসনের কর্তারা। তাঁদের একাংশের বক্তব্য, সুম্বলের ঘটনায় অভিযুক্ত তাহির আহমেদ মিরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। দ্রুত তদন্ত শেষ করে দোষীর শাস্তির জন্য পদক্ষেপ করা হবে বলে বারবার আশ্বাস দিয়েছে প্রশাসন। তার পরেও বিক্ষোভ থামার লক্ষণ নেই। ফলে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উপত্যকায় বড় মাপের হিংসা ছড়ানোর ষড়যন্ত্র হয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।