মাওবাদী ঘনিষ্ঠতা এবং নরেন্দ্র মোদীকে হত্যার ছক কষার ষড়যন্ত্রে জড়িত থাকার অভিযোগে কবি ও মানবাধিকার কর্মী ভারাভারা রাওকে গ্রেফতার করল পুলিশ! মঙ্গলবার পুণে পুলিশ হায়দরাবাদের বাড়ি থেকে তাঁকে গ্রেফতার করে।

জানুয়ারিতে মহারাষ্ট্রের ভীমা কোরেগাঁওয়ে বিস্ফোরণের তদন্তে মঙ্গলবার একযোগে দেশের বড় বড় শহরে অভিযানে নামে পুলিশের বিশেষ বাহিনী। অভিযান হয় ফরিদাবাদ, গোয়া, মুম্বই, ঠাণে, রাঁচি, হায়দরাবাদে। ভারাভারা রাও ছাড়াও একই সঙ্গে দেশের নানাপ্রান্তে বিভিন্ন মানবাধিকার কর্মী, লেখকের বাড়ি বাড়ি তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ। প্রচুর গুরুত্বপূর্ণ নথি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। সমাজকর্মী সুধা ভরদ্বাজ, গৌতম নাভলাখা, অরুণ ফেরেরা, ভার্নন গঞ্জালভেসকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ভারাভারা রাওয়ের বিরুদ্ধে কী অভিযোগ?

পুলিশ সূত্রে খবর, জুনে পুণের পুলিশ একটি চিঠি উদ্ধার করেছিল। সেই চিঠির পুরোটা জুড়েই ছিল প্রধানমন্ত্রীকে কোথায়, কবে এবং কী ভাবে খুন করা হবে তার বর্ণনা। ভীমা কোরেগাঁও বিস্ফোরণে যাঁদের গ্রেফতার করা হয়েছিল, সেই ৫ জনের মধ্যে একজনের বাড়ি থেকেই উদ্ধার হয়েছিল এই চিঠি।

আরও পড়ুন: ভীমা কোরেগাঁও কাণ্ডে ‘মাও যোগ’! দেশ জুড়ে বিদ্বজ্জনদের ধরপাকড়

পুণে পুলিশ জানিয়েছে, চিঠিটি ‘আর’ বলে কোনও একজন লিখেছিলেন। রাজীব গাঁধীকে যে ভাবে হত্যা করা হয়েছিল, একই ভাবে বর্তমান প্রখানমন্ত্রীকেও হত্যার ছক কষা হয়েছে তাতে। এমনকি তাতে এও উল্লেখ রয়েছে, এম-৪ রাইফেল কেনার জন্য ৮ কোটি টাকা এবং যে জায়গায় হত্যা করা হবে তার জন্য ৪ লক্ষ টাকার প্রয়োজন। এবং সেই চিঠিতেই ভারাভারা রাওয়ের নামোল্লেখ ছিল বলে পুলিশের দাবি।

আরও পড়ুন: ঠিক যেন জরুরি অবস্থা, বললেন অরুন্ধতী, নিন্দার ঝড় দেশ জুড়ে

আরও পড়ুন: টাকার কাছে আত্মসমর্পণ নয়: ছাত্র সমাবেশে সতর্কবার্তা মমতার

যদিও ভারাভারা রাও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেন।