সাংবাদিক গৌরী লঙ্কেশের হত্যার পিছনে সঙ্ঘ পরিবারের মতাদর্শকে দায়ী করেছিলেন। এ নিয়ে মানহানির মামলায় আজ মহারাষ্ট্রের মাজগাঁও-সিউড়ি আদালতে একসঙ্গে হাজিরা দিলেন রাহুল গাঁধী ও সীতারাম ইয়েচুরি। অভিযুক্ত দুই নেতা নিজেদের নির্দোষ বলে দাবি করার পরে আজ আদালত তাঁদের জামিন দিয়েছে। তবে এর পর এগোবে মামলা। তবে সেই শুনানিতে হাজিরা দেওয়া নিয়ে রাহুল, ইয়েচুরিকে ছাড় দিয়েছে আদালত।

লঙ্কেশ হত্যায় আরএসএসের নাম জোড়ার জন্য ২০১৭ সালে রাহুল, ইয়েচুরি, সনিয়া গাঁধীর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেছিলেন সঙ্ঘের কর্মী ধৃতিমান জোশী। সনিয়াকে রেহাই দিলেও আদালত ডেকে পাঠায় রাহুল ও ইয়েচুরিকে। আজ বিচারক পি আই মোকাশি যখন দু’জনের নাম ধরে ডাকেন, কাঠগড়ায় হাজির হন তাঁরা। বিচারক অভিযোগ পড়ে শোনান। প্রশ্ন করেন, রাহুল ও ইয়েচুরি নিজেদের দোযী না কি নির্দোষ মনে করছেন? দুই নেতাই নিজেদের নির্দোষ মনে করায় ১৫ হাজার টাকার বন্ডে তাঁদের জামিন দেওয়া হয়।

তবে শুধু মহারাষ্ট্রেই নয়, বিভিন্ন বিষয় নিয়ে রাহুলের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে। ৬ জুলাই পটনার আদালতে যাবেন রাহুল। নরেন্দ্র মোদীকে ‘চোর’ বলায় তাঁর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ৯ জুলাই যাবেন সুরতে, একই অভিযোগের মামলার জন্য। ১২ জুলাই আমদাবাদের আদালতে। তাঁর বিরুদ্ধে আমদাবাদ সমবায় ব্যাঙ্কের করা মানহানি মামলার হাজিরা দিতে। ২৪ জুলাইও আরও একবার তাঁকে গুজরাতে যেতে হতে পারে।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও।সাবস্ক্রাইব করুনআমাদেরYouTube Channel - এ।