চোখে কালো রোদচশমা, মাথায় সাদা টুপি, সাদা-কালো খোঁচা খোঁচা দাড়ি। হাতে একটি লাঠি। জিন্‌স আর তিনটি জ্যাকেট গায়ে চাপিয়ে তিনি নিজস্বীর আবদার মেটাচ্ছেন সহযাত্রীর।

এক সপ্তাহ ধরে রাহুল গাঁধীর এমন একটি ছবির জন্যই মুখিয়ে ছিল কংগ্রেস। কৈলাস-মানসরোবর সফর শুরুর দিন থেকেই কখনও কৈলাসের, কখনও রাক্ষসতাল হ্রদের ছবি পোস্ট করছেন রাহুল। আজও টুইটে ১৮ সেকেন্ডের একটি ভিডিও পোস্ট করে লিখেছেন, ‘‘শিবই মহাবিশ্ব।’’ রাহুলের এই সফর নিয়ে এমনিতেই চাপে বিজেপি। তাদের হিন্দুত্বের তাস বোধহয় হাতছাড়া হল! তাই রোজই রাহুলের ছবি নিয়ে প্রশ্ন তুলে বিজেপি নেতারা বলছিলেন, কংগ্রেস সভাপতি আদৌ গিয়েছেন কৈলাসে?

আজ রাহুলের টুইটের কয়েক মিনিটের মধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় দ্রুত ছড়িয়ে পড়ল সহযাত্রীর সঙ্গে রাহুলের ছবি। সঙ্গে সঙ্গে ফের আসরে বিজেপি। মোদী সরকারের মন্ত্রী গিরিরাজ সিংহ রাহুলের হাতে ধরে থাকা লাঠির ছায়া না-দেখতে পেয়ে বললেন, ‘‘এ তো ফটোশপ! রাহুল আর সহযাত্রীর ছায়া আছে, লাঠির নেই!’’ বিজেপির অন্য নেতারা প্রশ্ন তুললেন, কৈলাসের নাম করে রাহুল আর কোথাও যাননি তো?

কিন্তু সেই প্রশ্ন নিমেষে উড়ে গেল। সোশ্যাল মিডিয়ায় দাপিয়ে বেড়াল রাহুলের কৈলাস সফরের একের পর এক ছবি-ভিডিয়ো। এক জন নয়, ডজন খানেক সহযাত্রীর সঙ্গে নানা ভঙ্গিতে রাহুলের ছবি ছড়াল। কংগ্রেসও সেগুলি পোস্ট করা শুরু করল। ভিডিয়োয় সহযাত্রীদের সঙ্গে যাত্রাপথে কথা বলতেও শোনা গেল।

সেখানেই থামল না। রাহুলের মোবাইলে ‘ফিটবিট’ অ্যাপের স্ক্রিন শটও সামনে এল। তাতে দেখা যাচ্ছে, ৭ ঘণ্টা ৪৩ মিনিটে প্রায় সাড়ে চার হাজার ক্যালোরি ঝরিয়ে ৩৪ কিলোমিটারের বেশি হেঁটেছেন রাহুল। প্রায় সাড়ে ৪৬ হাজার পা ফেলেছেন, ২০৩ তলা চড়েছেন। কংগ্রেস ঘুরপথে চ্যালেঞ্জ ছুড়ল নরেন্দ্র মোদীকে। হিম্মত থাকলে এই রেকর্ড ভেঙে দেখান। ফের হিসেব কষে বিজেপি বলল, পাহাড়ি রাস্তায় পৌনে আট ঘণ্টায় ৩৪ কিলোমিটার হাঁটা কী করে সম্ভব?

বিজেপির যাবতীয় প্রশ্ন উড়িয়ে দিলেন যিনি তিনি মিহির পটেল। ছবিতে রাহুলের সঙ্গে তাঁকেই দেখা যাচ্ছে। তিনি আবার মোদীর রাজ্য গুজরাতের বাসিন্দা। পরিবারের ১৫ জন সদস্যকে নিয়ে কৈলাস পরিক্রমায় গিয়েছেন। পথে দেখা রাহুলের সঙ্গে। পরিক্রমা শেষে এখন ঘরে ফেরার পথে। তাঁর মোবাইল থেকেই ছবি ঘুরছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। গুজরাতের বাড়িতে বসে তাঁর স্ত্রী বললেন, ‘‘মিহির হেঁটেছেন রাহুলের সঙ্গে, ভিডিয়ো চ্যাট করে আমার সঙ্গেও কথা বলিয়ে দিয়েছেন। খুবই মাটির মানুষ রাহুল গাঁধী। মনেই হল না এক জন রাজ নেতা।’’

রাহুলের কৈলাস সফর নিয়ে উদ্বেগ বাড়ল মোদীর। হিন্দু তাস হাতছাড়া হওয়ার চিন্তা বাড়িয়ে কংগ্রেস নেতারা বললেন, ‘‘এই প্রথম কোনও প্রথম সারির রাজনৈতিক নেতা কৈলাসের দুর্গম পথে গেলেন। সেটি সম্ভব হয়েছে শিবের ডাক এসেছে বলেই। বাকি নেতাদের তা সম্ভব নয়। ভুয়ো হিন্দুদের দিন শেষ।’’