ফ্রান্সে পৌঁছে প্রথম রাফাল যুদ্ধবিমানের চাবি হাতে পেলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহ। এ সঙ্গেই রাফালের ইঞ্জিন নির্মাতা সংস্থা সাফরানের কাছ থেকে এল ভারতে ১৫ কোটি ডলার বিনিয়োগের প্রস্তাব। তবে লগ্নির আগ্রহ দেখিয়েও ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সামনে সংস্থার সিইও বললেন, কর আর শুল্ক চাপিয়ে ভয় পাইয়ে দেবেন না!

রাজনাথের ফ্রান্স সফরের কেন্দ্রে রয়েছে রাফাল। মঙ্গলবার ফ্রান্সের বোর্দোয় আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রথম রাফালের চাবি তুলে দেওয়া হয় ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর হাতে। বিজয়া দশমী বা দশেরার ‘রীতি মেনে’ যুদ্ধ বিমানটিকে পুজো করেন রাজনাথ। সেটির গায়ে এঁকে দেওয়া হয় ওম চিহ্ন, ফাটানো হয় নারকেল। চাকার নীচে রাখা হয় লেবু। ‘শস্ত্র পূজা’ করে রাফালে সওয়ার হন প্রতিরক্ষামন্ত্রী। পরে জানান, তাঁর আশা, যে ৩৬টি রাফালের জন্য দাসোকে বরাত দেওয়া হয়েছিল, তার মধ্যে ১৮টি ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারির মধ্যে হাতে পাবে ভারত। বাকি ১৮টি পৌঁছতে ২০২২ সালের এপ্রিল-মে মাস হয়ে যাবে।

যুদ্ধবিমানগুলিতে ১৩ ধরনের নতুন বিষয় জোড়ার জন্য নির্মাতা সংস্থাকে বলেছে ভারতীয় বায়ুসেনা। রাফাল হাতে এলে  তা পৌঁছবে পঞ্জাবের অম্বালা আর পশ্চিমবঙ্গের হাসিমারা ঘাঁটিতে। প্রথম রাফাল যুদ্ধবিমানটি হাতে পাওয়ার পরে রাজনাথের মন্তব্য, ‘‘কোনও দেশের উপর হামলা করার কথা ভেবে নয়, আত্মরক্ষার কথা ভেবেই যে কোন অস্ত্র কেনে ভারত।’’ 

চাকায় লাগানো লেবু। ছবি সৌজন্য়ে সোশ্যাল মিডিয়া।

মঙ্গলবার রাতে ফ্রান্সের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ফ্লোরেন্স পার্লির সঙ্গেও বৈঠক করেন রাজনাথ। পরে জানান, আলোচনা সফল হয়েছে। ভারত ও ফ্রান্স সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে একজোট হচ্ছে। প্যারিসে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল মাকরঁ-র সঙ্গেও দেখা করেছেন রাজনাথ।

বুধবার রাজনাথ প্যারিসের কাছে রাফালের ইঞ্জিন নির্মাতা সংস্থা সাফরানের কারখানায় পৌঁছন। সেখানে সংস্থার সিইও ওলিভিয়ে অঁদ্রিয়ে জানান, ভারতে প্রশিক্ষণ ও বিমান রক্ষণাবেক্ষণ কেন্দ্র গড়ে তুলতে ১৫ কোটি ডলার বিনিয়োগ করতে চান তাঁরা। তবে ভারতের কর ও শুল্কের চাপে তাঁরা যাতে ভয় না পান, মন্ত্রীকে তা দেখার জন্য অনুরোধ করেন তিনি।

প্যারিসের কারখানায় ভারতীয় বংশোদ্ভূত ইঞ্জিনিয়ারদের সঙ্গে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহ। ছবি: পিটিআই।

রাজনাথ জানান, ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ প্রকল্পকে বাস্তবায়িত করতে বিনিয়োগের উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করতে দায়বদ্ধ ভারত। তিন দিনের সফরের শেষ পর্বে প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম নির্মাতা সংস্থাগুলির কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের সময়ে রাজনাথ আজ আশ্বাস দিয়েছেন, প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ প্রকল্পের স্বার্থে প্রয়োজনে কর কাঠামো বদলের কথা বিবেচনা করবে ভারত।