ভর্তির নিয়ম পাল্টানো, শিক্ষক নিয়োগে সংরক্ষণের নিয়ম অগ্রাহ্য করা, দুর্নীতি, প্রশাসনিক ব্যর্থতার মতো একাধিক অভিযোগ তুলে জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য জগদেশ কুমারের অপসারণ চেয়ে কেন্দ্রকে চিঠি দিলেন বিভিন্ন দলের প্রায় পঞ্চাশ জন সাংসদ। কুমারের অপসারণ চেয়ে গত এক বছরে এ নিয়ে দু’বার সরব হলেন সাংসদরা।  

উপাচার্যকে সরানোর দাবিতে দীর্ঘদিন ধরেই সরব বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সংগঠন। এ বার এগিয়ে এলেন সাংসদেরা। আরজেডি সাংসদ মনোজ ঝা-র উদ্যোগে সাড়া দিয়ে আপের সঞ্জয় সিংহ, কংগ্রেসের কুমার কেটকর— এ রকম প্রায় ৪৯ জন সাংসদ কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকরকে দু’দিন আগে চিঠি দিয়ে বলেন, জেএনইউয়ের মতো প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংসের অভিযোগ উঠেছে উপচার্যের বিরুদ্ধে। তাঁর বিরুদ্ধে দুর্নীতি, অদক্ষতা ও প্রশাসনিক ব্যর্থতার অভিযোগ খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিটি গড়া হোক। সরানো হোক তাঁকে। 

সঙ্ঘ-ঘনিষ্ঠ জগদেশ কুমার জেএনইউ-র দায়িত্বে আসার পরেই বিতর্কের শুরু। পড়ুয়াদের মধ্যে দেশভক্তির অভাব রয়েছে, ওই ধারণা থেকে জাতীয়তাবাদ বাড়াতে বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে কার্গিল যুদ্ধের ট্যাঙ্ক বসানোর সিদ্ধান্ত নেন জগদেশ। এ নিয়ে বিতর্ক ওঠায় পিছিয়ে আসেন।