• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

স্বামী গায়ে হাত তুললে পাল্টা দেবেন নারীরাও

11

Advertisement

নারীর হাতে প্রতিবাদের তরবারি। যা এ বার ঝলসে উঠল স্বামীর অন্যায়ের বিরুদ্ধেও।

কারণ, উত্তরপ্রদেশের মেরঠের আমহেরা আদিপুর গ্রামের মহিলারা বুঝে গিয়েছেন, মুখ বুজে স্বামীদের অত্যাচার সহ্য করলেই তা থেমে যাবে না। এর জন্য ‘পাল্টা’ দিতে হবে। গ্রামের মহিলারা তাই ঘোষণা করেছেন, স্বামী যদি মদ খেয়ে বাড়ি ফেরেন বা স্ত্রীর গায়ে হাত তোলার চেষ্টাও করেন, তা হলে তাঁকে ছেড়ে কথা বলা হবে না। এক্কেবারে ‘টিট ফর ট্যাট’! সেই কারণে সূর্যাস্তের পরে গ্রামের রাস্তায় কোনও মাতালকে দেখা গেলে তাঁকে চিহ্নিত করা হবে।

সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, বুধবার দুপুরে গ্রামের ১০০-র বেশি মহিলা এক জায়গায় জড়ো হয়ে ঠিক করেছেন, কোনও রকম গার্হস্থ্য হিংসা, জুয়া খেলা, কন্যাভ্রূণ হত্যা-সহ নানান অন্যায়-অত্যাচার আর বরদাস্ত করা হবে না। প্রাক্তন পঞায়েত প্রধান সুনীতা দেবী বলেন, ‘‘মাঝেমধ্যেই গ্রামের বিভিন্ন জায়গায় পুরুষদের জুয়া খেলতে দেখা যায়। এতে শুধু তাঁদের টাকায় নষ্ট হয় না। তাঁদের পরিবারেও এর খারাপ প্রভাব পড়ে। এর বিরুদ্ধেও আমরা আন্দোলন গড়ে তুলব।’’ কন্যা ভ্রূণ হত্যার বিরুদ্ধেও সচেতনতা গড়ে তোলা হবে বলে জানিয়েছেন সরোজ দেবী নামে এক মহিলা। পুলিশ তোলা তুললে তাকেও ছাড়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তাঁরা।

সব মিলিয়ে গোটা বিষয়টিই যেন উত্তরপ্রদেশের বুন্দেলখন্ডের সম্পত পাল দেবীর তৈরি করা ‘গুলাবি গ্যাং’-এর প্রতিচ্ছবি। শুধু মাত্র মহিলাদের নিয়ে গড়া এই ‘গুলাবি গ্যাং’ মহিলাদের উপর সংঘটিত অন্যায়-অত্যাচারের বিরুদ্ধে লড়াই চালায়। এই ‘গুলাবি গ্যাং’-কে নিয়েই তৈরি হয়েছে ‘গুলাব গ্যাং’ ছবিটি।

সম্পত পাল দেবীর মতোই লড়াইয়ে নেমেছেন সুনীতা দেবী-সরোজ দেবী-রীতা সিংহরা। রীতা তো সাফ বলছেন, ‘‘আমাদের প্রতিবাদ না করার কারণেই সমস্যাগুলি এই পর্যায়ে এসে পৌঁছেছে। সমস্ত বাজে কাজের আখড়া হয়ে উঠেছে আমাদের গ্রামটি। আমাদের এই সব বন্ধ করতেই হবে।’’  

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন