বৃন্দাবনে এ বার থেকে আর ডিম, মাংস ও মদ খাওয়া যাবে না। একই নির্দেশ কার্যকরী হতে চলছে বারসানাতেও। শুক্রবার এমনটাই জানিয়েছেন উত্তরপ্রদেশের ধর্ম বিষয়ক এবং সংস্কৃতি মন্ত্রী লক্ষ্মীনারায়ণ চৌধুরী। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন, এই দুই জায়গায় পর্যটকদের উন্নয়নে বেশ কিছু পরিকল্পনা করা হয়েছে।

শুক্রবারই উত্তরপ্রদেশের এই দুই স্থানকে পবিত্র তীর্থস্থান হিসাবে ঘোষণা করেছে যোগী প্রশাসন। এই প্রথম রাজ্য সরকারের তরফে ওই স্বীকৃতি মিলেছে।

লক্ষ্মীনারায়ণ চৌধুরী জানিয়েছেন, হরিদ্বারে মদ ও মাংস নিষিদ্ধ করার কথা আগেই ছিল। এ বার সরকার বৃন্দাবন এবং বারসানা তীর্থস্থান হিসেবে যুক্ত করায় সেখানেও মদ, ডিম, মাংস বন্ধ করা হবে। কিন্তু, কবে থেকে এই নিষিদ্ধকরণ প্রক্রিয়া শুরু হবে? এ প্রশ্নের উত্তরে রাজ্যের ধর্মীয় বিষয়ক দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব অভিনিশ কুমার অবস্তি জানিয়েছেন, খুব শীঘ্রই এ বিষয়ে পদক্ষেপ করা হবে।

শুক্রবার যোগী প্রশাসনের তরফে এক বিবৃতি জারি করে জানানো হয়েছিল, মথুরার বৃন্দাবনে ভগবান কৃষ্ণ এবং বলরামের জন্ম। অন্য দিকে বারসানা রাধার জন্মস্থান। এ দু’টিই পবিত্র। প্রতি বছর লাখ লাখ পর্যটক ও ভক্তের সমাগম হয় এই জায়গাগুলিতে। রাজ্যের পর্যটনে এদের গুরুত্ব অপরিসীম। আর সে কারণেই পবিত্র তীর্থস্থান হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: আইএস-যোগ আহমদ পটেলের! অভিযোগ গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রীর

সূত্রের খবর, বৃন্দাবন ও বারসানা— মথুরা জেলার এই দুই শহরের নিকাশী ব্যবস্থার উন্নয়নে ইতিমধ্যেই ৩৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে কেন্দ্র। পাশাপাশি বারসানায় একটি রোপ-ওয়ে চালুরও কথা রয়েছে। ‘মন্দির শহর’ বৃন্দাবনে প্রায় ৫ হাজারের বেশি মন্দির রয়েছে। এর মধ্যে পুরনো মন্দিরগুলি সংস্কারেও পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে বলে রাজ্য সরকার সূত্রে খবর।