প্রায় জনা তিরিশ খুদে। কারও গায়েই স্কুলের পোশাক নেই। শুক্রবার সকালে তারা স্কুল থেকে বেরিয়ে দু’টো লাইন করে দাঁড়াল। স্লোগান তুলল, দেশ কি রক্ষা কৌন করেগা? হম করেঙ্গে। ক্যায়সে করেঙ্গে? তন সে করেঙ্গে, মন সে করেঙ্গে, ধন সে করেঙ্গে। দেহ, মন, অর্থ সব কিছু দিয়ে তারা দেশ রক্ষার শপথ নিল। কিসের জন্য সংগ্রাম? প্রিয় প্রধান শিক্ষককে তারা ফিরে পেতে চায়। তিনি না ফেরা পর্যন্ত স্কুলে আসবে না তারা। শনিবার অবশ্য প্রশাসন জানাল, ওই শিক্ষককে বদলি করা হচ্ছেই।

উত্তরপ্রদেশের পিলিভিট জেলার বিসলপুর ব্লকের ঘটনা। গিয়াসপুর-২ প্রাথমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষক ফুরকান আলিকে সম্প্রতি বিশ্ব হিন্দু পরিষদের অভিযোগের ভিত্তিতে সাসপেন্ড করা হয়। পরিষদের দাবি, ফুরকান পড়ুয়াদের ইসলামি প্রার্থনা শেখাচ্ছিলেন। ফুরকান অভিযোগ অস্বীকার করেছেন এবং ব্লক শিক্ষা দফতরের তদন্তে তাঁর কথাই সত্য বলে উঠে এসেছে। পরিষদ যাকে ইসলামি প্রার্থনা বলেছে, তা মহম্মদ ইকবালের লেখা বিখ্যাত কবিতা ‘লব পে আতি হ্যায় দুয়া।’ সরকারি স্কুলের উর্দু পাঠ্যক্রমেও কবিতাটি আছে। ফুরকানের স্কুলে জাতীয় সঙ্গীতের সঙ্গে এই কবিতাটিও মাঝে-মধ্যে গাওয়া হত। তবু কেন অন্য তাঁকে সরানোর সিদ্ধান্ত, সেটাই বাসিন্দাদের প্রশ্ন।