লোকসভা ভোট মিটতেই তাজমহল নিয়ে নতুন করে হিন্দুত্বের জিগির তুলতে মাঠে নেমে পড়ল শিবসেনা। আগরায় মমতাজের সমাধিস্থলে শিবপুজো করার হুমকি দিয়েছেন শিবসেনার আগরা শাখার সভাপতি  বিনু লাভানিয়া। ফলে, তাজমহল চত্বরের নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।

সম্প্রতি শিবসেনার দেওয়ার ওই হুমকির পর আগরা প্রশাসনকে চিঠি দিয়ে বিষয়টি জানায় ভারতীয় প্রত্নতাত্ত্বিক সমীক্ষা বিভাগ (এএসআই)। তাতে বলা হয়, ১৯৫৮ সালের প্রাচীন সৌধ, প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন সংরক্ষণ আইন অনুযায়ী, তাজমহলের মতো জায়গায় নতুন ভাবে কোনও ধর্মাচরণ করা যায় না। তাজমহলের মূল যে সৌধ সেখানে কোনও ধর্মাচরণ হয় না এমনিতেই। তাজমহলে ঢোকার মুখে একটি মসজিদ রয়েছে। তার ঠিক উল্টো দিকে রয়েছে জবাব। আইন অনুযায়ী ওই সৌধস্থলে নতুন করে কোনও ধর্মাচরণ করা যাবে না। এর পরেই জেলা প্রশাসনের তরফে তাজমহল চত্বরে অতিরিক্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়।

আগরায় এএসআইয়ের সুপারিনটেন্ডেন্ট বসন্ত স্বর্ণকার বলেন, ‘‘আজ পর্যন্ত তাজমহলে পুজো, আরতি হয়নি। জেলা প্রশাসনকে অনুরোধ জানিয়েছি, যাতে তাজমহলের বাইরে কড়া নিরাপত্তার বন্দোবস্ত করা হয়।’’ আগরার অতিরিক্ত জেলাশাসক কেপি সিংহ বলেন, ‘‘কাউকে শহরের আইনশৃঙ্খলা লঙ্ঘন করতে দেওয়া হবে না। এএসআইয়ের অনুরোধ মেনে নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।’’

আরও পড়ুন: ‘এ বার কড়া পদক্ষেপ চাই’, হাফিজ সইদ নিয়ে পাকিস্তানকে কড়া বার্তা মার্কিন প্রশাসনের​

আগরায় শিবসেনার সভাপতি বিনু লাভানিয়া। গত বুধবার, শ্রাবণ মাস শুরুর ঠিক এক দিন আগে, তাজমহলে ঢুকে শিবপুজোর  হুমকি দেন তিনি। পারলে তাঁকে আটকানো হোক বলে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন স্থানীয় প্রশাসন এবং পুলিশের উদ্দেশেও। লাভানিয়া বলেন, ‘‘তাজমহল কোনও সমাধিক্ষেত্র নয়। এটি আসলে ভগবান শিবের মন্দির, তেজো মহালয়। এই শ্রাবণ মাসের প্রতি সোমবার সেখানে পুজো এবং আরতি করব আমরা।’’ তাঁর এই হুমকিতেই নড়েচড়ে বসে এএসআই।

তবে এই প্রথম নয়, আগেও একাধিক বার হিন্দুত্ববাদীদের রোষে পড়েছে বিশ্বের অষ্টম আশ্চর্যের মধ্যে অন্যতম তাজমহল। সপ্তদশ লোকসভা ভোটের আগে তাজমহল নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেন বিজেপির রাজ্যসভা সাংসদ বিনয় কাটিয়ার। তিনি বলেন, ‘‘তেজ মন্দিরকে সমাধিক্ষত্রে পরিণত করা হয়েছিল। খুব শীঘ্র তাজমহলকে তেজ মন্দিরে ফিরিয়ে আনব আমরা।’’

আরও পড়ুন: লক্ষ্য পূরণ হয়েছে, দিল্লিতে ফিরে যাওয়ার আগে প্রিয়ঙ্কা বলে গেলেন, ‘আবার আসব’​

তাজমহল আসলে হিন্দু মন্দির তা প্রমাণ করতে গত বছর তাজমহলের ভিতরে মসজিদে পুজো করে বিতর্কে জড়ান অন্তর্রাষ্ট্রীয় হিন্দু পরিষদের সদস্য তিন মহিলা। ২০০৮ সালে হাতজোড় করে তাজমহলের পরিক্রমা করার সময় পুলিশের সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধ বাধে শিবসেনারই একদল কর্মীর। তাদের গ্রেফতারও করে পুলিশ।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।