নিরাপত্তাবাহিনী ও মাওবাদীদের সঙ্ঘর্ষে ছত্তীসগঢ়ে মৃত্যু হয়েছে পাঁচ মাওবাদীর। তাদের ছোড়া গুলিতে  জখম হয়েছেন জেলা সংরক্ষিত বাহিনীর (ডিআরজি) দুই জওয়ানও। তাঁদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

শনিবার সকালে নারায়ণপুর জেলার অবুঝমাড় জঙ্গলে এই ঘটনা ঘটেছে। সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ডিজিপি ডিএম অবস্থি জানান, রায়পুর থেকে ৩৫০ কিলোমিটার দূরে ধুর্বেদা গ্রামের কাছে ওই ঘন জঙ্গলে মাওবাদীরা প্রশিক্ষণ শিবির খুলেছে বলে গোপন সূত্রে খবর মেলে। সেই অনুযায়ী শনিবার সকাল ৬টা নাগাদ অভিযানে চালায় ডিআরজি-র একটি দল। সেখানে তাঁদের দেখে এলোপাথাড়ি গুলি চালাতে শুরু করে মাওবাদীরা।

মাওবাদীদের জবাব দিতে পাল্টা গুলি চালান ডিআরজি-র জওয়ানরাও। মাওবাদীদের সঙ্গে প্রায় দেড় ঘণ্টা গুলি বিনিময় চলে তাঁদের। তার মধ্যেই আচমকা উধাও হয়ে যায় মাওবাদীরা। সাড়া শব্দ না পেয়ে এর পর তল্লাশি অভিযানে নামেন জওয়ানরা। তখনই জঙ্গলের মধ্য থেকে পাঁচ মাওবাদীর দেহ উদ্ধার হয়। উদ্ধার হয় প্রচুর অস্ত্রশস্ত্রও।

আরও পড়ুন: উপত্যকায় পা রাখতে পারলেন না রাহুলরা, শ্রীনগর থেকেই ফিরতে হল দিল্লিতে

আরও পড়ুন: দৃপ্ত আইনজীবী থেকে দূরদর্শী নেতা, রাজনৈতিক সহবতের উজ্জ্বল মাইলফলক​

মাওবাদীদের গুলিতে জখম দুই জওয়ানকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তবে এখনও ওই জঙ্গল এবং সংলগ্ন এলাকায় তল্লাশি অভিযান চলছে। এলাকায় আর কোনও মাওবাদী লুকিয়ে রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।