• নিজস্ব সংবাদদাতা 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

সুপারবাইকে সওয়ার বোবডেকে নিয়ে প্রশ্ন

Sharad Arvind Bobde
বাইক-আরোহী বোবডের এই ছবিই ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

গায়ে কালচে টি-শার্ট। চোখে চশমা। চোখ ধাঁধানো সুপার মোটরবাইকে সওয়ার। ‘ধুম’ ছবির দৃশ্য নয়। হার্লে ডেভিডসন-এর সিভিও ২০২০ ‘লিমিটেড এডিশন’-এর বাইকে আরোহীও বলিউডের হিরো নন। তিনি দেশের প্রধান বিচারপতি শরদ অরবিন্দ বোবডে।

৬৪ বছর বয়সি প্রধান বিচারপতির এই ছবি রবিবার রাত থেকেই টুইটার-ফেসবুকে ‘ভাইরাল’। রবিবার ছবিটা তোলা হয়েছিল নাগপুরে। সোমবার থেকে কয়েকজন আইনজীবী প্রশ্ন তুলতে শুরু করেন, মাথায় হেলমেট কোথায়? মুখে মাস্ক কোথায়? কেউ কটাক্ষ করেন, পরিযায়ী শ্রমিকদের যদি ৫০ লক্ষ টাকার বাইক থাকত, তা হলে তাঁদের আর হাঁটতে হত না। কংগ্রেস ঘনিষ্ঠ তথ্যের অধিকার কর্মী সাকেত গোখলে আবার বাইকের নম্বরপ্লেট দেখে বার করে ফেললেন, বাইকটি নাগপুরের বিজেপি নেতা সোনবাজি মুসালের ছেলে রোহিতের।

বিজেপি নেতার বাইকে প্রধান বিচারপতি সওয়ার কেন! বিতর্ক শুরু হতে বোবডের ঘনিষ্ঠ মহল থেকে জানানো হয়, তিনি জানতেনই না বাইকটি কার। তিনি বাইকে চড়েননি। শুধুই বসে দেখেছেন, কেমন লাগে।

আরও পড়ুন: কাদের শৈশবের কথা বলছেন, প্রশ্ন মোদীকে

তবে বোবডে যে বাইকপ্রেমী, অবসরের পরে একটা হার্লে ডেভিডসন কেনার ভারি শখ, তা-ও মানছে প্রধান বিচারপতির ঘনিষ্ঠ মহল। বিচারপতি হওয়ার আগে তাঁর দু’টি বাইক ছিল। তার একটি রয়্যাল এনফিল্ড। তিনি চুপিচুপি বাইক চেপে ঘুরে বেড়াতেন। অন্য কারও হার্লে ডেভিডসন পেলে আবাসনের মধ্যে চালাতেন। অবসরের পরে বাইক কেনার শখ রয়েছে বলেই তিনি ডিলারের কাছে খোঁজখবর করেছিলেন। রবিবার বোবডে একটি বৃক্ষরোপণ অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন। সেখানে বাইকটি পাঠিয়ে দেন ডিলার। তাতেই একটু বসে দেখেছিলেন। বিচারপতি বলে কি ব্যক্তিগত শখ জলাঞ্জলি দিতে হবে, প্রশ্ন প্রধান বিচারপতির ঘনিষ্ঠদের।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন