নাত্‌সি জমানার সঙ্গে ভারতের বর্তমান পরিস্থিতির তুলনা করে নরেন্দ্র মোদীকে এক হাত নিয়েছিলেন রাহুল গাঁধী। সেই উত্তরেই এ বার রাহুলকে ‘ধন্যবাদ’ জানালেন কেন্দ্রীয় বস্ত্র উন্নয়নমন্ত্রী স্মৃতি ইরানি।

দু’দিন আগেই টুইটারে কেন্দ্রীয় সরকারকে কটাক্ষ করে কংগ্রেসের সহ-সভাপতি মোদীকে হিটলারের সঙ্গে তুলনা করেন। টুইটে তিনি নাজি নেতার একটি বক্তব্যও লিখে দেন। রাহুল লেখেন, ‘হিটলার বলেছিলেন বাস্তবের উপর কঠোর নিয়ন্ত্রণ রাখো। যাতে যে কোনও সময় তার কণ্ঠরোধ করতে পারো।’ রাহুলের মতে, মোদী জমানাতেও ভারতে এই অবস্থাই চলছে। রাহুলের এই টুইটে প্রধানমন্ত্রীর তরফে কোনও মন্তব্য না করা হলেও টুইট যুদ্ধে নামেন স্মৃতি। তিনি লেখেন, ‘মোদী নন, গণতন্ত্রের কণ্ঠরোধ করার চেষ্টা করেছিলেন রাহুলের ঠাকুমা ইন্দিরা গাঁধী। রাহুল এই কথাটিই বুঝতে ৪২ বছর দেরি করে ফেলেছেন।’

আরও পড়ুন: ইসলাম না নিলে হাত-পা কাটা হবে, হুমকি চিঠি মালয়ালি লেখককে

ক্ষমতায় আসার পর থেকেই মোদী সরকার বাক-স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করছে বলে অভিযোগ ছিল বিভিন্ন মহলেই। এ নিয়ে আগেও সরব হয়েছে কংগ্রেস-সহ বিভিন্ন বিরোধী দলগুলি। এ বারও বিজেপি জমানাকে কটাক্ষ করে রাহুল বলেন, ‘মোদী সরকার দেশকে একনায়কতন্ত্রের জায়গায় নিয়ে যেতে চাইছে। যেখানে কোনও প্রশ্ন চলবে না।’

এই প্রেক্ষিতেই ১৯৭৫-এর জরুরি অবস্থার কথা রাহুলকে মনে করিয়ে দেন স্মৃতি ইরানি। সেই সময় কী ভাবে ভারতের স্বাধীন কণ্ঠ রোধ করা হয়েছিল তারও উল্লেখ করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। শুধু তাই নয়, ’৭৫-এর সেই ২১ মাসকে স্বাধীন ভারতের অন্যতম কালো দিন বলেও সম্বোধন করেন স্মৃতি। পাশাপাশি আগামী দিন বিজেপি সরকারের কাছে নয়, বরং কংগ্রেসের জন্য আরও রংহীন হতে চলেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।