আপ ও কংগ্রেস জোট নিয়ে ধোঁয়াশাই
রবিবার লোকসভা ভোটের দিন ঘোষণা হলেও দিল্লিতে আপের সঙ্গে কংগ্রেস জোট বাঁধবে কি না, তার ফয়সালা হল না।
Congress and AAP

—প্রতীকী ছবি।

রবিবার লোকসভা ভোটের দিন ঘোষণা হলেও দিল্লিতে আপের সঙ্গে কংগ্রেস জোট বাঁধবে কি না, তার ফয়সালা হল না।

দিল্লি কংগ্রেসের শীর্ষনেত্রী ও প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিত গত সপ্তাহে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছিলেন, রাজধানীতে কোনও জোট করছে না কংগ্রেস। দিল্লির সাতটি আসনে কংগ্রেস একাই লড়বে। শনিবার সনিয়া গাঁধীর সঙ্গে দেখা করার পরে সেই শীলাই খানিকটা ধোঁয়াশা তৈরি করে বললেন, ‘‘এখনও পর্যন্ত কোনও জোট হয়নি।’’ শনিবার সকালে সনিয়ার সঙ্গে দেখা করে পরে তিনি দলের দফতরে যান। সাক্ষাতের কথা স্বীকার করলেও জোট নিয়ে সনিয়ার সঙ্গে আলোচনা হয়েছে কি না, তা স্পষ্ট করেননি শীলা। শুধু বলেছেন, ‘‘জোট হচ্ছে না বলেই কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গাঁধীকে আমরা জানিয়েছি। সনিয়াকেও সে কথা বলেছি।’’  

গত সপ্তাহের শুরুতে দলীয় কর্মীদের নিয়ে বৈঠকের পরে রাহুল সাংবাদিকদের বলেছিলেন, লোকসভা ভোটে দিল্লিতে আপের সঙ্গে জোট বাঁধতে চাইছে না কংগ্রেস। ভোটের আসন নিয়ে আপের সঙ্গে কংগ্রেসের দরকষাকষি চলছেই। শীলা নিজেও জানান, ষথেষ্ট আসন না পেলে তিনিও জোটের বিরোধী। শনিবার সনিয়ার সঙ্গে দেখা করা পরে সাংবাদিকদের তিনি বলেছেন, রাহুলের সঙ্গে তাঁর সাক্ষাৎ হয়েছে। আলোচনা চলছে। তবে এআইসিসি সূত্রের খবর, কংগ্রেস-আপ জোট প্রসঙ্গে সনিয়া এ দিন শীলাকে বলেছেন, এই টানাপড়েনে  বিজেপি-বিরোধী ভোট কংগ্রেস ও আপের মধ্যে ভাগাভাগি হয়ে গেলে শেষ পর্যন্ত নরেন্দ্র মোদীর দলই যে লাভবান হবে, সেই কথাও যেন মনে রাখা হয়। তিনি জানিয়েছেন, জোটের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত সভাপতিই নেবেন। এরই মধ্যে জোট নিয়ে সিদ্ধান্ত না নেওয়ার জন্য কংগ্রেসকে আক্রমণ  করেছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল। শনিবার মুস্তফাবাদ এলাকায় আপ নেতা কংগ্রেসকে ‘উদ্ধত’ আখ্যা দিয়ে দাবি করেছেন, লোকসভা ভোটে জোট গড়ে না লড়লে দিল্লিতে কংগ্রেসের প্রার্থীদের জামানত জব্দ হবে।                                    

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত