হস্টেলের লিফ্টে এক ছাত্রীর সামনে হস্তমৈথুন করলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের এক কর্মী। আর তা নিয়ে অভিযোগ জানাতে গেলে ওই ছাত্রীকে ভর্তসনা করলেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ, 'অভব্য পোশাক পরা'র জন্য!

গোটা ঘটনা নিয়ে তোলপাড় চেন্নাইয়ের অদূরে এসআরএম বিশ্ববিদ্যালয়। ঘটনার প্রতিবাদে ও অভিযুক্তের গ্রেফতারের দাবিতে বৃহস্পতিবার রাতে হাজারখানেকেরও বেশি ছাত্রী বিক্ষোভ দেখান বিশ্ববিদ্যালয়ে। তার জেরে শুক্রবার গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্তকে।

তামিলনাড়ুর কাঞ্চিপুরমে এসআরএম বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, যাঁর সামনে ওই হস্তমৈথুন করা হয়েছে, তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী। বৃহসপতিবার বিকেলে হস্টেলের লিফ্টে তাঁর সঙ্গে উঠেছিলেন এস অর্জুন নামে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক কর্মী। যিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে সাফাইয়ের কাজ করেন। লিফ্টে উঠে ছাত্রীটি পাঁচ তলার বোতাম টেপেন। আর ওই কর্মী টেপেন সাত তলার বোতাম। কিন্তু পাঁচ তলায় ছাত্রীটিকে নামতে দেননি ওই কর্মী। লিফ্টটিকে তিনি নিয়ে যান ন'তলায়। তার পর সেখানেই ছাত্রীটির সামনে হস্তমৈথুন করেন অভিযুক্ত।

আরও পড়ুন- ‘আমাদের প্রজন্মের প্রেম যাদবপুরের ক্যাম্পাসের মতো’​

আরও পড়ুন- থানার জলসায় শিল্পীকে ‘হেনস্থা’, জমা রিপোর্ট​

বিক্ষোভকারী ছাত্রীদের তরফে জানানো হয়েছে, ওই ঘটনার পর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ জানাতে যান ছাত্রীটি। কিন্তু তাঁর অভিযোগে কোনও গুরুত্বই দিতে চাননি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বরং 'অভব্য পোশাক' পরার জন্য তাঁকে ভর্তসনা করা হয়। শুধু তাই নয় লিফ্টের সিসিটিভি ফুটেজ কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দিতেও আর এক কর্মী প্রায় দু'ঘণ্টা দেরি করেন বলে ছাত্রীদের অভিযোগ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সাঞ্চেতি বলেছেন, ''গোটা ঘটনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ছাত্রীদের সঙ্গে কথা বলা হচ্ছে। কিছু ঘটে থাকলে, তার যথাযথ তদন্ত হবে।"