• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মুখ্যমন্ত্রীর ক্ষতি করতে তাঁর সৎ মা তুক-তাক করছেন! অভিযোগ সপা বিধায়কের

Akhilesh Yadav
উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব। তাঁর ক্ষতি করার জন্য তাঁর সৎ মা নাকি তুক-তাক করছেন। —ফাইল চিত্র।

Advertisement

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর ক্ষতি করতে তুক-তাক করছেন তাঁর সৎ মা!

এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করলেন সমাজবাদী পার্টির এক বিধায়ক। দলের সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ সিংহ যাদবের বাবা মুলায়ম সিংহ যাদবের কাছেই এই অভিযোগ জানিয়েছেন উদয়বীর সিংহ নামে ওই বিধায়ক। মুলায়মের দ্বিতীয় স্ত্রী সাধনা এবং ভাই শিবপাল হাত মিলিয়ে অখিলেশের ক্ষতি করতে চাইছেন বলে মুলায়মকে লেখা চিঠিতে দাবি করেছেন উত্তরপ্রদেশ বিধান পরিষদের ওই সদস্য।

উত্তরপ্রদেশের শাসক দল সমাজবাদী পার্টির শীর্ষ নেতৃত্বে তথা যাদব পরিবারে অভ্যন্তরীণ বিরোধ এখন তুঙ্গে। এই পারিবারিক কলহের এক প্রান্তে মুলায়মের পুত্র তথা উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব এবং মুলায়মের ভাই তথা দলের প্রবীণ নেতা রামগোপাল যাদব। অন্য প্রান্তে মুলায়মের আর এক ভাই তথা রাজ্যের প্রভাবশালী মন্ত্রী শিবপাল সিংহ যাদব, মুলায়মের দ্বিতীয় স্ত্রী সাধনা। দীর্ঘ রাজনৈতিক নির্বাসনের পর সদ্য সমাজপাদী পার্টিতে ফিরে আসা অমর সিংহও সাধনা-শিবপালের দিকেই রয়েছেন বলে শোনা যাচ্ছে। এই বিবাদে মুলায়ম ঝুঁকতে চেয়েছিলেন সাধনা-শিবপাল-অমর গোষ্ঠীর দিকেই। কিন্তু দলে মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদবের জনপ্রিয়তা এমনই পর্যায়ে যে মুলায়ম শিবপালদের দিকে ঝুঁকলে বিদ্রোহের পরিস্থিতি তৈরি হবে। তাই আপাতত ভারসাম্য রক্ষার নীতি নিয়েই চলতে হচ্ছে মুলায়মকে। তবে তাতে ক্ষোভ চাপা থাকছে না। সমাজবাদী পার্টির বিভিন্ন স্তরেই দলের তরুণ মুখ অখিলেশ যাদবের প্রতি সমর্থন প্রবল। অখিলেশের প্রতিটি ‘অপমান’ই তাঁর অনুগামীদের ক্ষোভ বাড়িয়ে দিচ্ছে। বিধান পরিষদের সদস্য উদয়বীর সিংহের চিঠি তারই প্রতিফলন বলে মনে করছে উত্তরপ্রদেশের রাজনৈতিক মহল।

আরও পড়ুন: মুলায়মদের যুদ্ধ বন্ধে নতুন সূত্র

উদয়বীর সিংহ মুলায়মকে ব্যক্তিগত চিঠিতে নিজের অভিযোগ জানিয়েছিলেন। কিন্তু সেই চিঠি সংবাদমাধ্যমের হাতেও চলে এসেছে। সমাজবাদী বিধায়কের দাবি, মুলায়ম সিংহের দ্বিতীয় স্ত্রী সাধনা অখিলেশ সম্পর্কে বিরূপ মনোভাব পোষণ করেন। মুলায়মের ভাই শিবপালও মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশের জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত বলে তাঁর দাবি। উদয়বীর সিংহের অভিযোগ, সাধনা ও শিবপাল হাত মিলিয়ে অখিলেশকে বিপদে ফেলতে চাইছেন। সাধনা অখিলেশের ক্ষতি করার জন্য তুক-তাক বা ডাকিনীবিদ্যা প্রয়োগ করছেন বলেও উত্তরপ্রদেশ বিধান পরিষদের ওই সদস্যের দাবি।

সমাজবাদী পার্টির নেতৃত্ব উদয়বীরের লেখা এই চিঠির তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে। দলের গুরুত্বপূর্ণ নেতা আশু মালিক বলেছেন, ‘‘নেতাজিকে (মুলায়মকে) অপমান করার কোনও চেষ্টা বরদাস্ত করা হবে না।’’ এই ধরনের চিঠি যাঁরা লিখতে পারেন, তাঁদের ৫০০টি ভোট পাওয়ার যোগ্যতাও নেই বলে আশু মালিক মন্তব্য করেছেন।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন