প্লাস্টিকের থলেয় মুড়ে সদ্যোজাত মেয়েকে নর্দমায় ফেলে গিয়েছিলেন মা। তাকে মৃত্যুর মুখ থেকে উদ্ধার করল একদল পথকুকুর। শনিবার সাত সকালে হরিয়ানার কৈথলে এমনই ঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, প্লাস্টিকের থলেতে মুড়ে শিশুটিকে নর্দমায় ফেলা গিয়েছিলেন এক মহিলা। কান্না এবং গোঙানির শব্দ পেয়ে নর্দমার কাছে জড়ো হয় একদল কুকুর। মুখে করে প্লাস্টিকের থলেটি তুলে আনে তারা।

তাতেই টনক নড়ে পথচলতি মানুষের। তড়িঘড়ি পুলিশে খবর দেন তাঁরা। তার পর শিশুটিকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসা চলছে তার। ওই হাসপাতালের এক চিকিৎসক জানান, শিশুটির মাথায় চোট লেগেছে। অবস্থা গুরুতর। সুস্থ হলে শিশুটিকে পাঁচকুল্লার একটি অনাথ আশ্রমে পাঠানো হবে বলে জানা গিয়েছে। কেউ চাইলে সেখান থেকে তাকে দত্তক নিতে পারবেন।

আরও পড়ুন: লক্ষ্য পূরণ হয়েছে, দিল্লিতে ফিরে যাওয়ার আগে প্রিয়ঙ্কা বলে গেলেন, ‘আবার আসব’​

আরও পড়ুন: দিল্লির প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিত প্রয়াত​

কৈথল পুলিশ সূত্রে জানিয়েছে, এলাকার সিসিটিভি ফুটেজে গোটা ঘটনা ধরা পড়েছে। এক মহিলাকে শিশুটিকে নর্দমায় ছুড়ে ফেলতে দেখা গিয়েছে। তবে এখনও পর্যন্ত তাঁকে শনাক্ত করা যায়নি। তদন্ত শুরু হয়েছে।

লিঙ্গ বৈষম্যের সূচকে এই মুহূর্তে দেশের সমস্ত রাজ্যগুলির মধ্যে প্রথম সারিতে হরিয়ানা। এই ঘটনায় তাই নড়েচড়ে বসেছে হরিয়ানা প্রশাসন। ওই মহিলার খোঁজ পেলে তাঁর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ঘটনার তদন্তের দায়িত্বে থাকা পুলিশ অফিসার প্রদীপ কুমার।