আধার তথ্যের নিরাপত্তা নিয়ে ট্রাই-প্রধানের সঙ্গে ওয়েব সুরক্ষা বিশেষজ্ঞদের তরজার মধ্যেই আসরে নেমে আধার কর্তৃপক্ষ জানালেন, এমন কাজ করবেন না। কথা না শুনলে শাস্তিও হতে পারে।

সোমবার রাতে রীতিমতো লিখিত বিবৃতি দিয়ে আধার কর্তৃপক্ষের বক্তব্য, ‘‘ইন্টারনেট বা সোশ্যাল মিডিয়ায় আধার নম্বর দিয়ে কাউকে চ্যালেঞ্জ করবেন না। এটা অনভিপ্রেত এবং একেবারেই করা উচিত নয়।’’ এ ধরনের কাজ করলে শাস্তিও হতে পারে বলে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে ওই বিবৃতিতে। 

আধার কর্তৃপক্ষের এই লিখিত বিবৃতির মূলে রয়েছে ট্রাই কর্তা আর এস শর্মার একটি টুইট চ্যালেঞ্জ। এ দিনের বিবৃতিতে কার্যত শর্মাকেই সতর্ক করা হয়েছে। দিন কয়েক আগে টুইটারে নিজের আধার নম্বর টুইটারে প্রকাশ করে শর্মা চ্যালেঞ্জ করেন, ওই নম্বর ফাঁস হলেও কোনও ক্ষতি করা সম্ভব নয়। এর পরেই ওই আধার নম্বরের ভিত্তিতে শর্মার মোবাইল নম্বর, প্যান-সহ একাধিক ব্যক্তিগত তথ্য জনসমক্ষে তুলে ধরেন এলিয়ট অ্যাল্ডারসন-সহ কয়েক জন ওয়েব সুরক্ষা বিশেষজ্ঞ। কিন্তু অনড় শর্মা পাল্টা জানান, ও সব থেকে প্রমাণ হয় না তাঁর ব্যক্তিগত নিরাপদে নেই! তখন তাঁর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে এক টাকা পাঠিয়ে সেই স্ক্রিনশটও টুইটারে পোস্ট করা হয়। তার পরেও নিজের দাবিতে অনড় থেকে একটি দৈনিকে নিবন্ধ লিখে সোমবার শর্মা দাবি করেন, তিনি হারেননি। এর পরেই সোমবার রাতে আসরে নেমে কার্যত শর্মাকেই নিশানা করলেন আধার কর্তৃপক্ষ। 

আধার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, আধার একটি বিশেষ নম্বর যা থেকে কারও পরিচয়ের বৈধতা নিশ্চিত করা যায়। বিবিধ পরিষেবা, সুযোগসুবিধা ও ভর্তুকির ক্ষেত্রে তা কাজে লাগে।