• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

স্মৃতি ইরানি কাণ্ড

সমন সত্ত্বেও গরহাজির ফ্যাব ইন্ডিয়ার দুই কর্তা

পুলিশের সঙ্গে পূর্ণ সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন কর্তৃপক্ষ। কিন্তু বাস্তবে দেখা গেল, জিজ্ঞাসাবাদের সমন পেয়েও পুলিশের সামনে হাজিরা দিলেন না ফ্যাব ইন্ডিয়ার সিইও সুব্রত দত্ত ও এমডি উইলিয়াম বিসসেল। স্মৃতি ইরানির ট্রায়াল রুম কাণ্ড সংক্রান্ত তদন্তে ওই দুই কর্তা-সহ ফ্যাব ইন্ডিয়ার ১১ জন কর্মীকে সমন পাঠিয়েছিল গোয়া পুলিশ। গত কাল রাতে হাজিরা দেন দুই কর্মী। কালাঙ্গুটের যে বিপণিতে ট্রায়াল রুম কাণ্ডটি ঘটেছিল, সেখানকার স্টোর ম্যানেজারও এ দিন তদন্তকারী অফিসারের সামনে হাজির হন। কিন্তু ফ্যাব ইন্ডিয়ার আইনজীবী জানান, দুই কর্তা আরও কিছু দিন সময় চেয়েছেন।

গোয়ায় বেড়াতে গিয়ে কালাঙ্গুটে ফ্যাব ইন্ডিয়ার দোকানে কেনাকাটা করতে যান কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। অভিযোগ, সেখানের ট্রায়াল রুমে পোশাক বদলাতে গিয়ে স্মৃতি নজর করেন, একটি ক্যামেরায় ছবি উঠছে তাঁর। বিষয়টি নিয়ে ফ্যাব ইন্ডিয়ার বিরুদ্ধে এফআইআর করেন কালাঙ্গুটের বিজেপি বিধায়ক মাইকেল লোবো। গ্রেফতার করা হয় সংস্থার চার কর্মীকে। কিন্তু তাঁরা জামিন পেয়ে যান। গত কাল ওই দোকানের স্টোর ম্যানেজার চৈত্রালি সবন্তের আগাম জামিন মঞ্জুর হয়।

গোপন ক্যামেরায় ছবি তোলার অভিযোগ না মানলেও ফ্যাব ইন্ডিয়া জানিয়েছিল, তদন্তের কাজে পূর্ণ সাহায্য করবে তারা। কিন্তু এ দিন তাদের দুই কর্তা সমন পেয়েও হাজির না হওয়ায় নানা ধরনের প্রশ্ন উঠছে। যদিও একাধিক রাজনৈতিক দল মনে করছে, একটা ঘটনার জন্য ফ্যাব ইন্ডিয়ার মতো সংস্থার কর্তাব্যক্তিদের দায়ী করা উচিত নয়। গত কাল বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছিলেন গোয়ার বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী লক্ষ্মীকান্ত পারসেকার। এ দিন তাঁর সুরেই ফ্যাব কর্তৃপক্ষের সপক্ষে কথা বলেন কংগ্রেস নেতা দিগ্বিজয় সিংহ। টুইটারে লেখেন, ‘‘গোয়ায় ফ্যাব ইন্ডিয়ার কোনও বিপণি যদি তাদের ট্রায়াল রুমে ক্যামেরার মুখ ঘুরিয়ে দেয়, তার মানে এই নয় যে সংস্থার কর্তৃপক্ষকে দায়ী করতে হবে।’’

রাজনৈতিক নেতাদের এ হেন মন্তব্যে ফ্যাব ইন্ডিয়ার ভাবমূর্তি আদৌ বদলাবে কি না, তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। কিন্তু স্মৃতির ঘটনার জেরে যে গোয়ার পর্যটক সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন উঠবে, তা বুঝেছে প্রশাসন। এ দিন মুখ্যমন্ত্রী পারসেকার অবশ্য আশ্বাস দেন, ‘‘গোয়া এখনও পর্যটকদের জন্য সম্পূর্ণ নিরাপদ।’’ তাঁর আরও যুক্তি, মন্ত্রী বলেই নয়, যে কোনও আম মহিলার সঙ্গে যদি এ রকম কিছু হতো, তা হলেও একই রকম পদক্ষেপ করত গোয়া প্রশাসন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন