কয়েকদিন আগেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী গিয়েছিলেন প্রয়াগরাজে। কুম্ভমেলায় পূণ্যস্নানে। সেখানে গিয়ে তিনি সাফাইকর্মীদের পা ধুয়ে তাঁদের গলায় পরিয়েছিলেন উত্তরীয়। তাঁদেরকে বলেছিলেন, ‘আসল কর্মযোগী’, স্বচ্ছ ভারত অভিযানের কাণ্ডারী।

মোদীর এই কর্মকাণ্ডের কয়েকদিন পরই সেই উত্তরপ্রদেশেই নর্দমা পরিষ্কার করতে গিয়ে মৃত্যু হল দু’জন সাফাইকর্মীর। সম্প্রতি এই ম়ত্যুর ঘটনাটি ঘটেছে খোদ প্রধানমন্ত্রীর লোকসভা কেন্দ্র বারাণসীতে। মৃত সাফাইকর্মীদের নাম রাজেশ পাসোয়ান ও চন্দন।

বারাণসীর পানদেইপুর এলাকায় একটি বর্জ্য জল ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্টে আটকে গিয়েছিল পাইপের মুখ। সেই পাইপ পরিষ্কার করার জন্যই নর্দমার চার ফুট নীচে নেমেছিলেন তাঁরা। প্রত্যক্ষদর্শীদের বয়ান অনুসারে, ম্যানহোল দিয়ে নামার পরই তলিয়ে যায় তাঁরা।

তারপর ঘটনাস্থলে উপস্থিত লোকজনই খবর দেয় পুলিশকে। কিন্তু ঘটনাস্থলে এসে দেহ উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। অবশেষে জাতীয় উদ্ধারকারী দলের ছ’ঘণ্টার চেষ্টায় উদ্ধার হয় দু’টি দেহ। পুলিশও ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

আরও পড়ুন: জনগণকে সতর্ক করতে নাগপুর পুলিশের ভরসা অভিনন্দনের ‘জবাব’

কিন্তু এই ঘটনার পরই ফের সামনে চলে এল কাজ করতে গিয়ে সাফাইকর্মীদের নিরাপত্তার প্রশ্ন। ঘটনাস্থলে উপস্থিত উত্তেজিত জনতা কর্তৃপক্ষের গাফিলতিকেই এই দুই সাফাইকর্মীর মৃত্যু হয়েছে বলে বিক্ষোভ দেখায়।

মোদীর লোকসভা কেন্দ্রেই সাফাইকর্মীদের মৃত্যু ফের দেখিয়ে দিল, পা ধোয়ানোই হোক বা গলায় উত্তরীয় ঝুলুক, সাফাইকর্মীদের কর্মস্থলে অবস্থার কোনও পরিবর্তন আদতে বিশেষ কিছু হয়নি।

আরও পড়ুন: ভারতে আটকে পড়া পাক নাগরিকদের খাবার তুলে দিল পঞ্জাব পুলিশ