• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

করিমগঞ্জে নিহত দুই জঙ্গি

arms
উদ্ধার অস্ত্রশস্ত্র। ছবি: শীর্ষেন্দু শী।

করিমগঞ্জ জেলার রাতাবাড়ির প্রত্যন্ত সুনাপুর গ্রামে সেনার সঙ্গে সংঘর্ষে ২ জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে। সেনা সূত্রে খবর, নিহত জঙ্গিরা ‘ইউনাইটেড ডেমোক্র্যাটিক লিবারেশন আর্মি’র সদস্য। এক জন ওই গোষ্ঠীর স্বঘোষিত সম্পাদক প্রধান শিশুরাম বিয়াং। অন্য জন কর্মকর্তা ধনঞ্জয় বিয়াং।

পুলিশ জানায়, গত ১৬ মার্চ স্থানীয় ব্যবসায়ী প্রবীর দাসকে অপহরণ করা হয়। এখনও তিনি মুক্তি পাননি। অপহৃতের খোঁজে রবিবার রাত ৩টে নাগাদ রাতাবাড়ির সুনাপুর গ্রামে হানা দেয় সেনা বাহিনী। আজ ভোরে জওয়ানদের সঙ্গে জঙ্গিদের সংঘর্ষ শুরু হয়। মৃত্যু হয় দুই জঙ্গির। ঘটনাস্থল থেকে একটি এ কে ৪৭ রাইফেল, ১টি বন্দুক, গুলি উদ্ধার করা হয়। স্থানীয় বাসিন্দাদের বক্তব্য, উদলা জঙ্গি বাহিনীর দুই নেতা নিহত হওয়ায় এলাকায় কিছুটা হলেও জঙ্গিদের দাপট কমবে। কিন্তু প্রবীরবাবুর খোঁজ না পাওয়ায় চিন্তায় পড়েছেন তাঁর আত্মীয়রা। পুলিশ জানিয়েছে, অপহৃত ব্যবসায়ীর খোঁজে অভিযান চলছে।

করিমগঞ্জ ও হাইলাকান্দির প্রত্যন্ত এলাকায় জঙ্গিদের দৌরাত্ম্যে সাধারণ মানুষ সমস্যায় রয়েছেন। মাঝেমধ্যেই অপহরণ, তোলাবাজির ঘটনা ঘটছে। জঙ্গিদের রুখতে রাতাবাড়ি থানা এলাকায় সেনা শিবির তৈরি করা হয়। ২০১১ সালের ১৯ অগস্ট করিমগঞ্জের শান্তিপুরে জঙ্গিদের সঙ্গে সংঘর্ষে এক জওয়ান জখম হয়েছিলেন। পাল্টা জবাবে মৃত্যু হয় ৭ জঙ্গির। উদ্ধার করা হয় প্রচুর অস্ত্রশস্ত্র। তার পর থেকে ওই সব এলাকায় জঙ্গি গতিবিধি কিছুটা হলেও কমে। কিন্তু কয়েক মাস পর ফের সেখানে সক্রিয় হয় ‘ইউনাইটেড ডেমোক্র্যাটিক লিবারেশন আর্মি’ (উদলা) বাহিনী।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন