এনআরএসের চিকিৎসক নিগ্রহের ঘটনায় উদ্বিগ্ন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে অবিলম্বে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে কথা বলবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। সাধারণ মানুষের যাতে পরিষেবা পেতে সমস্যা না-হয়, তার জন্য আজ চিকিৎসকদেরও কাজে ফেরার আবেদন করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী— যিনি নিজেও এক জন চিকিৎসক। তবে কলকাতার চিকিৎসক নিগ্রহের ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে আজ দিনভর সরব থেকেছেন অন্যান্য রাজ্যের চিকিৎসকেরা। বস্তুত, দিল্লির এমস-এর চিকিৎসকেরা আগামিকাল আউটডোরে কাজ বন্ধ রাখার কথা রাখিয়েছেন। আজ তাঁরা কেউ মাথায়-হাতে ব্যান্ডেজ বেঁধে, কিংবা হেলমেট পরে রোগী দেখেছেন। প্রতীকী ধর্মঘটের প্রস্তুতি নিচ্ছেন মহারাষ্ট্র-তেলঙ্গানার চিকিৎসকেরাও। 

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের কর্তাদের আশঙ্কা, পশ্চিমবঙ্গের সরকারি হাসপাতালগুলির পরিস্থিতি অবিলম্বে স্বাভাবিক না-হলে রাজ্যের সামগ্রিক স্বাস্থ্য পরিষেবাই ভেঙে পড়বে। তাই অবিলম্বে চিকিৎসকদের কাজে ফেরার ডাক দিয়েছেন হর্ষ বর্ধন। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী আজ বলেন, ‘‘আমি অবিলম্বে এ নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলব, যাতে ভবিষ্যতে এই ধাঁচের ঘটনা রোখা সম্ভব হয়।’’ রোগীর পরিজনদের বিরুদ্ধে চিকিৎসকদের মারধরের যে অভিযোগ উঠেছে, তার সমালোচনা করে হর্ষ বর্ধন বলেন, ‘‘চিকিৎসকেরা অধিকাংশ সময়েই কঠিন পরিস্থিতিতে ও চাপের মধ্যে কাজ করে থাকেন। তাই রোগীর পরিবারবর্গকে সংযত থাকতে অনুরোধ করছি। চিকিৎসকদের জন্য সুষ্ঠু ও নিরাপদ কাজের পরিবেশ তৈরি করে দেওয়া ভীষণ দরকার।’’ 

‘আমরা জঙ্গি নই। আমরা চিকিৎসক। মানুষের প্রাণ বাঁচাই’— দিল্লির এমসে আজ এই পোস্টার দেখা গিয়েছে চিকিৎসকদের হাতে-হাতে। আর ছিল প্রতীকী প্রতিবাদ হিসেবে মাথায় ব্যান্ডেজ বা হেলমেট। কাজের জন্য নিরাপদ পরিবেশ দাবি করে আজ এএমসের রেসিডেন্ট ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন (আরডিএ) জানিয়েছে, কলকাতার ঘটনার প্রতিবাদে আগামিকাল তাঁদের ওপিডি পরিষেবা বন্ধ থাকবে। খোলা থাকবে কেবল জরুরি পরিষেবা। বিবৃতিতে আরডিএ আরও 

জানিয়েছে, পশ্চিমবঙ্গে চিকিৎসকদের হস্টেলে অস্ত্রধারীরা হামলা চালাচ্ছে। তা থেকেই স্পষ্ট, ওই রাজ্যে চিকিৎসকদের সুরক্ষা দিতে ব্যর্থ প্রশাসন। অবিলম্বে মুখ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবি করেছে তারা। 

টোকিও-তে ওয়ার্ল্ড মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের তরফে আজ কলকাতার চিকিৎসক নিগ্রহের সমালোচনা করা হয়েছে। এমনকি ইংল্যান্ডেও ভারতীয় চিকিৎসকেরা আগামিকাল কালো ব্যাজ পরে রোগী দেখবেন বলে একটি সূত্রের দাবি। ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (আইএমএ) আগেই প্রতিবাদ জানিয়েছিল। কাল পথে নামছে আইএমএ-র রাজ্য শাখাগুলি। ধর্মঘটী চিকিৎসকদের পাশে দাঁড়িয়ে কাল প্রতিটি জেলায় সকাল ১০টা থেকে ১২টা পর্যন্ত জেলাশাসকের দফতরের সামনে ধর্না দেবে তারা। ধর্না শেষে জেলাশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আইএমএ-র রাজ্য শাখাগুলিকে। 

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।