এবছর মথুরার বিখ্যাত ‘ছপ্পন ভোগ’ উত্সর্গ করা হল ইসরোর পরবর্তী চন্দ্রাভিযানের সাফল্য কামনায়। মথুরার এবারের এই ‘মহা অভিষেক’ অনুষ্ঠানে যোগ দেন ইসরোর বিজ্ঞানী কে সিদ্ধার্থ। তাঁর সঙ্গে তাঁর পরিবারের সদস্যরা ছিলেন বলেও জানিয়েছেন অনুষ্ঠানের আয়োজকরা।

প্রতিবছর মথুরায় এই সময় ‘মহা অভিষেক’ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেতে মানুষ উপস্থিত হন। কৃষ্ণকে সন্তুষ্ট করার জন্য দ্বাপর যুগ থেকে ৫৬ রকম নৈবেদ্য সাজিয়ে দেওয়া হয়, এমনটাই দাবি করেছেন, মথুরার শ্রী গিরিরাজ সেবা সমিতির সভাপতি মুরারী আগরওয়াল। এ বছর ১১ সেপ্টেম্বর থেকে তিন দিন এই উত্সবের আয়োজন হয় গোবর্ধন পর্বত এলাকায়।

গোবর্ধন পর্বতকে ঘিরে রথে করে কৃষ্ণের মূর্তি নিয়ে শোভাযাত্রা বের হয়।তিন দিনের অনুষ্ঠানে শুক্রবার এই ‘ছপ্পন ভোগ’ তৈরি হয়। এই ভোগ বা প্রসাদ তৈরি করার জন্য ঘি-সহ ২১ হাজার কেজির উপকরণ ব্যবহার হয়। আর প্রসাদ তৈরি করার জন্য রাঁধুনি আনা হয়, লখনউ, আগরা, ইনদওর, রথলাম ও মাদুরাই থেকে। এমনটাই জানিয়েছেন মুরারী আগরওয়াল।

আরও পড়ুন : সুমেরুতে খুলছে ইগলু হোটেল, পকেটে রেস্ত থাকলে ঘুরে আসতে পারেন!

আরও পড়ুন : রিয়াধের রাস্তায় শরীর-ঢাকা পোশাক ছাড়া মহিলা, হাঁ করে তাকিয়ে দেখলেন মানুষ

তিন দিনের এই মহা অভিষেক অনুষ্ঠানে এই বছর এক লক্ষের বেশি মানুষ অংশ নিয়েছিলেন। অনুষ্ঠানে প্রসাদ বিতরণ হয় শুক্রবার। তারপর রাত্রে আরতি দিয়ে অনুষ্ঠান শেষ হয়।