ছোটবেলায় সবাইকে শেখানো হয় রাস্তা পারাপারের আগে ডানদিক, বাঁ দিক দেখে নিতে হয়। এই শিক্ষা কি বাঘ বা বাঘিনীরাও তাদের সন্তানদের দেয়? না কি মানুষের আশেপাশে থাকতে থাকতে তারাও শিখে নিয়েছে, রাস্তায় যানবাহন এড়িয়ে কী ভাবে রাস্তা পেরতে হয়? এক বাঘের সতর্ক হয়ে রাস্তা পেরনোর দৃশ্য দেখে তাই হতবাক সকলে।

ভারতীয় বন বিভাগের এক আধিকারিকপ্রবীণ কাসওয়ানের ভেরিফায়েড টুইটার হ্যান্ডলে একটি ভিডিয়ো আপলোড করা হয়েছে। গাড়ির ভেতর থেকে রেকর্ড করা হয়েছে ভিডিয়োটি। দেখা যাচ্ছে, রাস্তার ধারে পাথরের উপর দাঁড়িয়ে রয়েছে একটি পূর্ণ বয়স্ক বাঘ। রাস্তা পেরবে সে। কিন্তু সামনে গাড়ির উপস্থিতি টের পেয়েছে। তাই রাস্তা পেরনোর আগে সতর্ক হয়ে বোঝার চেষ্টা করছে, কোনও বিপদ আছে কিনা। রাস্তা পেরনোর ক্ষেত্রে কোনও বিপদ নেই বুঝে দ্রুত রাস্তা পেরিয়ে যায় বাঘটি।

ছবিটি নাগপুরের কাছে চোরবাহুলি ক্রসিং এলাকায় পেঞ্চ জাতীয় উদ্যানে তোলা। এটি টাইগার করিডরের মধ্যে পড়ে।আর বাঘটি যে রাস্তাটি পেরল সেটি ৭ নম্বর জাতীয় সড়ক।

 

মধ্যপ্রদেশের সেওনি থেকে মহারাষ্ট্রের নাগপুর পর্যন্ত ৭ নম্বর জাতীয় সড়কে ৯.৩ কিলোমিটার ফ্লাইওভার করার প্রস্তাব আসে।২০০৮ সালেন্যাশনাল হাইওয়ে অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (এনএইচএআই), সুপ্রিম কোর্টের এক প্যানেলকে জানায় পেঞ্চ টাইগার রিজার্ভের ওপর দিয়ে তারা এই ফ্লাইওভার তৈরি করবে। যাতে বন্য পশুদের যাতায়াতে কোনও ব্যাঘাত না ঘটে।

আরও পড়ুন : তেলেঙ্গানায় ২টি জায়গায় বিষ দিয়ে মারা হল প্রায় ১২৮টি কুকুর

আরও পড়ুন : শরীর ঢেকে বিমানে উঠুন, মহিলা যাত্রীকে বললেন কর্মী!

আবার ২০১৪ সালে এনএইচএআই জানিয়ে দেয় তারা কেবল ১ কিলোমিটার ফ্লাইওভার তৈরি করতে পারে। ২০১৫ সালে সেই পরিকল্পনাও পরিবর্তন হয়ে যায়। এনএইচএআই বলে কয়েকটিইকোডাক্ট (রাস্তার ওপর এমন সংযোগকারী সেতু যা দিয়ে বন্য পশুরা জঙ্গল পারাপার করতে পারে সহজে) তৈরি করে দিতে পারবে।