হেলমেট না পরে বাইক চালাচ্ছিলেন স্বামী। পিছনে বসেছিলেন স্ত্রী, হেলমেট না পরে।

তা দেখে পুলিশ পিছু তাড়া করে। পুলিশের হাতে ধরা পড়ার ভয়ে আরও জোরে বাইক চালাতে গিয়ে রাশ সামলাতে না পেরে বাইক উল্টে যায়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় বাইকের পিছনের সিটে বসে থাকা মহিলার।

বুধবারের ঘটনা, তামিলনাড়ুর ত্রিচি জেলার তিরুভেরুম্বুরে। ঘটনার পর পুলিশকর্মীর গ্রেফতারের দাবিতে এলাকায় টানা দু’ঘণ্টা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয় বাসিন্দারা। পিছু তাড়া করা ট্রাফিক পুলিশকর্মীকে পরে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ জানাচ্ছে, হেলমেট না পরে বাইক চালাচ্ছিলেন মৃত মহিলার স্বামী রাজা। বাইকের পিছনের সিটে বসে থাকা রাজুর স্ত্রীর মাথাতেও হেলমেট ছিল না। তিরুভেরুম্বুরে পুলিশের চেক পয়েন্টে না দাঁড়িয়ে রাজুকে বেপরোয়া বাইক চালিয়ে বেরিয়ে যেতে দেখে বাইক নিয়ে তাঁদের পিছনে ধাওয়া করেন কামরাজ নামে এক ট্রাফিক পুলিশকর্মী। ভয় পেয়ে আরও জোরে বাইক চালাতে থাকেন রাজু। তাতেই ঘটে বিপত্তি। টাল সামলাতে না পেরে বাইক উল্টে যায়। রাস্তায় ছিটকে পড়েন রাজু ও তাঁর স্ত্রী।

আরও পড়ুন- কেওড়াতলায় আক্রান্ত বিজেপি, দিলীপের মিছিল আটকে দিল পুলিশ​

      আরও পড়ুন- দাউদ-ঘনিষ্ঠ ফারুককে হাতে পেল সিবিআই​    

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ওই সময় তাঁদের শুশ্রুষার পরিবর্তে রাস্তায় পড়ে যাওয়া রাজুর স্ত্রীকে লাথি মারেন ওই ট্রাফিক পুলিশকর্মী। ওই সময় মত্ত অবস্থায় ছিলেন পুলিশকর্মীটি। তবে স্থানীয়দের আরেকটি অংশের দাবি, রাস্তায় পড়ে যাওয়ার পর পিছন থেকে আসা একটি বাসের চাকায় পিষ্ট হন ওই মহিলা।

এক পুলিশকর্তা অবশ্য বলেছেন, ‘‘পড়ে গিয়েই ওই মহিলার মৃত্যু হয়েছে। তদন্ত শুরু হয়েছে।’’