বর্তমানে ইন্টারনেটের যুগে সোশ্যাল মিডিয়ায় বুলিং এবং আক্রমণাত্মক কমেন্টের ছড়াছড়ি। এর জেরে বহু মানুষ মানসিক ভাবে পর্যুদস্ত হন। এ সবের মোকাবিলা করতেই ইনস্টাগ্রাম নিয়ে এসেছে নতুন দুটি ফিচার যাতে ব্যবহারকারীরা  আক্রমণাত্মক এবং অপমানকর কমেন্টগুলি এড়িয়ে যেতে পারেন।

এখন থেকে ইনস্টাগ্রামে যদি কেউ অপমানজনক কিংবা আক্রমণাত্মক কমেন্ট করেন, তা হলে ইনস্টাগ্রাম সেই কমেন্ট সমস্ত ব্যবহারকারীর কাছ থেকে লুকিয়ে রাখবে। এই কারণেই তারা ব্যবহার করছে আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স্‌ অ্যালগোরিদম। এর মাধ্যমে ইনস্টাগ্রাম নিজে থেকেই বিভিন্ন আপত্তিকর এবং অপমানজনক কমেন্টগুলি পড়তে পারবে। সেই মন্তব্যগুলিকে লুকিয়ে বা হাইড করে রাখবে অন্যান্য ব্যবহারকারীদের থেকে।

আরও একটু বিশদে বললে, এখন থেকে কেউ যদি কারও ব্যাপারে কোনও রকম কটূক্তি করেন সে ক্ষেত্রে কমেন্ট হাইড করে যিনি ওই কমেন্ট করেছেন,তাঁর কাছেই ইনস্টাগ্রাম নোটিফিকেশন পাঠাবে যে, এই ধরনের কমেন্ট না করাই ভাল। তার পরও যদি কেউ কমেন্ট করেন, তা হলে যিনি এই অপ্রীতিকর কমেন্টটি করেছেন তাঁকে বারবার মেসেজ পাঠিয়ে সেই কমেন্টটি ডিলিট করার কথা বলবে।

আরও পড়ুন : উইন্ডোজ ১০-এ ‘বাগ’? চিন্তায় মাইক্রোসফ্ট

 

এই নতুন পদ্ধতি ব্যবহার করে বুলিং সম্পূর্ণ রোখা না গেলেও হয়ত তার প্রভাব কিছুটা হলেও কমানো যাবে। তবে যে সমস্ত ইউজার আলাদা অ্যাকাউন্ট তৈরি করে বুলিং করে থাকেন তাঁদের ক্ষেত্রে এই নতুন ফিচার হয়ত ততটা কার্যকরী হবে না। সে ক্ষেত্রে যারা এই বুলিং এর শিকার,ইনস্টাগ্রাম তাঁদের হাতে ক্ষমতা দিচ্ছে, যার মাধ্যমে তারা এই কমেন্টটি নিজেরাই ডিলিট করতে পারবেনে। যাতে অন্য কেউ না দেখতে পারে কিন্তু যে কমেন্টটি করেছে সে জানতে পারবেন না যে তাঁর কমেন্টটি ডিলিট করা হয়েছে, কারণ তিনি কমেন্টটি দেখতে পারবে। শুধু কমেন্ট নয় মেসেজের ক্ষেত্রেও গ্রাহক কোনও রকম অপমানজনক বার্তা পেলে সেই বার্তা পড়েছে কি না, তা প্রেরক জানতে পারবেন না। ফলে, গ্রাহক বারবার বিরক্ত হবেন না।

ইন্সটাগ্রামের আধিকারিকরা এই দুই ফিচারের মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের কাছে ইন্সটাগ্রামকে আরও সুরক্ষিত এবং ব্যবহার উপযোগী করে তুলতে সচেষ্ট।

 

আরও পড়ুন : ‘আপডেট ফর স্যামসাং’ একটি ভুয়ো অ্যাপ, আপনি কি জানতেন?