প্রতি মাসে প্রায় ২ মিলিয়ন বা ২০ লক্ষেরও বেশি অ্যাকাউন্ট ব্লক করে দিচ্ছে হোয়াটসঅ্যাপ। একসঙ্গে অনেক মেসেজ পাঠানো এবং সন্দেহজনক ব্যবহারের জন্যই ওই অ্যাকাউন্টগুলি ব্লক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ। এর মধ্যে ৭৫ শতাংশ অ্যাকাউন্ট সরাসরি ব্লক করেছে হোয়াটসঅ্যাপ এবং ২০ শতাংশ অ্যাকাউন্টকে হোয়াটসঅ্যাপে রেজিস্ট্রেশন করবার সময় ব্লক করা হয়েছে।

হোয়াটসঅ্যাপের তরফে জানানো হয়েছে যে, ব্যক্তিগত মেসেজ পাঠানোর জন্য হোয়াটসঅ্যাপ প্ল্যাটফর্মটি তৈরি হয়েছিল। কিন্তু কখনই একটি ব্রডকাস্ট প্ল্যাটফর্ম হিসেবে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করতে দেওয়ার কথা ভাবেননি তাঁরা। হোয়াটসঅ্যাপের মতো প্ল্যাটফর্মকে ব্যবহার করে অনেক ভুয়ো ও বেনামী সংস্থা হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীদের কাছে এমন কিছু লিংক পাঠাচ্ছে, যাতে ক্লিক করলেই ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য হাত বদল হয়ে যাবার সম্ভাবনা থাকে। এ ছাড়াও ফেক মেসেজ ছড়িয়ে বিভ্রান্তি বা হিংসা ছড়ানোর মতো ঘটনাও ক্রমবর্ধমান। এই প্রবণতা রুখতেই হোয়াটসঅ্যাপের তরফে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

হোয়াটসঅ্যাপ জানিয়েছে যে, মূলত ইন্টারনেট ব্যবহার করে ভুয়ো মোবাইল নম্বর তৈরি করে এই ধরনের ভুয়ো সংস্থা গুলো। তার পর সেই নম্বর ব্যবহার করে ভুয়ো হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট তৈরি করে ব্যবহারকারীদের কাছে পাঠাতে থাকে ‘স্প্যাম’ মেসেজ। সেই সব অ্যাকাউন্টগুলিকেই চিহ্নিত করে ব্লক করতে উদ্যোগী হয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ। এর ফলে গ্রাহক সুরক্ষা বজায় থাকবে এবং ব্যবহারকারীদের কাছে হোয়াটসঅ্যাপের বিশ্বাসযোগ্যতা আরও বড়বে বলে মনে করছে ফেসবুক অধিগৃহীত এই সংস্থা।

আরও পড়ুন: ছবি চুরির অভিযোগ, প্লে-স্টোর থেকে বাদ পড়ল ২৯ অ্যাপ

আরও পড়ুন: ৮০ বছরে গলে যাবে হিমালয়ের অর্ধেক বরফ! শুকিয়ে যাবে গঙ্গা, ব্রহ্মপুত্র!