এ বছর একের পর এক চমক দেখিয়ে চলেছে স্মার্টফোন নির্মাতারা। ফোনের দাম অনুযায়ী আরও বেশি পরিমাণে সুযোগ-সুবিধা-প্রযুক্তি দিয়ে বাজর ধরার প্রতিযোগিতায় সবাই কোমর বেঁধে নেমে পড়েছে। সেই লড়াইয়ের সব চেয়ে নতুন প্রতিযোগী পকো এফ ওয়ান বাকিদের পিছনে ফেলে অনেকটাই এগিয়ে এই মুহুর্তে।
শাওমির বাজার ধরার এই কৌশল নতুন নয় । সেই ২০১৪ সালে এমআই ৩ বার করে চমকে দিয়েছিল সবাইকে। ক্রেতা থেকে নির্মাতা, সবাইকে চমকে দিয়ে অল্প কিছুদিনের মধ্যেই সেরা ফোনের তালিকায় নিজের স্থান করে নেয় শাওমি। প্রথম ফ্ল্যাশ সেল, অর্থাৎ নির্দিষ্ট দিনে নির্দিষ্ট সময় এই ফোন পাওয়া যেত কেবলমাত্র একটি ই-কমার্স সাইটে। আর সেই ফোনের চাহিদা ছিল এমন, সেল শুরু হবার ৫ মিনিটের মধ্যেই সব ফোন বিক্রি হয়ে যেত।
ধীরে ধীরে ভারতবর্ষে নিজের জায়গা বানিয়ে নেয় শাওমি। শুধু ভালো দামে ভালো ফোন নয়, বিক্রির পরেও ওয়্যারান্টি ও যথাযথ সার্ভিসিং দিয়ে বেশ ভরসাযোগ্য জায়গা বানিয়ে নেয় নিজের। একের পর এক ফোন, পাওয়ার ব্যাঙ্ক, হেডফোন, এমনকি, টিভিও মার্কেটে আনতে থাকে। আর সবটাই হিট। ফলাফল, গত এক বছরে শাওমি ভারতবর্ষের সবচেয়ে বেশি বিক্রি হওয়া স্মার্টফোন।

আরও পড়ুন: বাজারে এল শাওমির এমআই ৬এক্স (এমআই এ২), জেনে নিন ফিচার

কম দামের মধ্যে ভাল ফোন দিয়ে কম বাজেটের মার্কেট এখন বেশির ভাগ শাওমির কব্জায়। কিন্তু দামি ফোনের জায়গায় এখনও বাকি কোম্পানিরা এগিয়ে। সেদিকেই এবার থাবা বসালো শাওমি। বাজারে নিয়ে এল নতুন ফোন পকো এফ ১। আর প্রতিবারের মত এবারেও বাজারে আনার সঙ্গে সঙ্গেই ফোন সুপারহিট।
পকোর সব থেকে বড় বৈশিষ্ট্য দাম ২১০০০ থেকে শুরু হলেও এর মধ্যে রয়েছে ফ্ল্যাগশিপ প্রসেসর স্ন্যাপড্রাগন ৮৪৫, পকো বাদে সব থেকে সস্তায় যে ফোনে এই প্রসেসর রয়েছে, তার দাম হলো ৩০,০০০, আসুস জেনফোন ৫জি । এছাড়াও এতে আছে লিকুইড কুলিং, ফলে ফোন সহজে গরম হবে না, আপনি যতই গেম খেলুন বা ভিডিও দেখুন। রয়েছে ৪০০০ এমএএইচ ব্যাটারি, যতই ব্যবহার করুন, একটা গোটা দিন চলার জন্যে যথেষ্ট । তা-ও যদি কম পড়ে, রয়েছে কুইক চার্জ প্রযুক্তি, এ ছাড়াও রয়েছে বিশাল বড় ৬.২ ইঞ্চি ডিসপ্লে । ৪০৩ পিপিআই, ২১৬০*১০৮০ পিক্সেল, সব কিছু এ বার ঝকঝকে চকচকে দেখতে পাবেন । সময় ২০১৮, তাই নিয়ম মেনে হাজির নচ, পিছনে ডুয়াল ক্যামেরা, ১২+৫ মেগাপিক্সেল, সামনে ২০ মেগাপিক্সেল, ফলে যে ক্যামেরাতেই ছবি তুলুন, তার কোয়ালিটি পাবেন বেশ ভাল।
ফোনটি ৬ জিবি অথবা ৮ জিবি র‌্যামে পাওয়া যাবে, স্টোরেজ ৬৪জিবি, ১২৮ জিবি ও ২৫৬ জিবির মধ্যে যেটা আপনার বাজেটে আসবে আপনি নিতে পারবেন। ৮ জিবি র‌্যামে ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজ ফোনটির একটি বিশেষ ব্যাক কভার দিয়ে পাওয়া যাবে, যাকে কেভ্লার বলা হচ্ছে। এর ফলে ফোন যেমন মজবুত হবে, হাত থেকে পড়ে ভেঙ্গে যাবার সম্ভাবনা আরও কমবে, আর দেখতেও বাকিদের থেকে বেশ ভাল ।

আরও পড়ুন: বাজার কাঁপাতে নতুন ফোন আসুসের

ডুয়াল ৪ জি সিম, ২৫৬ জিবি অবধি মাইক্রো এসডি কার্ড , ব্লুটুথ ৫, অ্যানড্রয়েড ওরিও ৮.১, যা কিনা পরে আপডেট পাবে, সমস্ত দরকারি পরিষেবা ও প্রযুক্তি উপস্থিত । প্রথম সেলে ফোনটি ২০০ কোটি টাকার ব্যবসা করেছে কেবল মাত্র ৫ মিনিটে, যা কিনা ওয়ানপ্লাসের রেকর্ড (১০০কোটি ১০ মিনিটে) ভেঙে দিয়েছে। পরবর্তী সেল ৫ তারিখ, ফলে পুজোয় যদি বন্ধুদের চমক দিতে চান, কিংবা ভাল ফোন কেনার প্ল্যান থাকে, একবার অন্তত দেখতে পারেন ফোনটা।

(নতুন স্মার্টফোন, নতুন ল্যাপটপ, ডিজিটাল ক্যামরা সহ বিভিন্ন গ্যাজেটের রিভিউ ও বাংলায় টেক রিভিউ পড়ুন আমাদের বিজ্ঞান বিভাগে।)