মিলে গেল দুই বাঙালি বিজ্ঞানীর পূর্বাভাস। গত ৩০ অগস্ট। ২৬ বছরের মাথায়। দুই বাঙালির এক জন শিলচরের। অসম বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্যোতির্বিজ্ঞান বিভাগের ডিন অশোক সেন। অন্য জন মেদিনীপুরের। অধুনাপ্রয়াত নারায়ণ চন্দ্র রানা।
সুজয় চক্রবর্তী
১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
vikram
নিজস্ব সংবাদদাতা
বিক্রম, তুমি হয়তো জানতে পারলে না, তোমার খোঁজ পাওয়ার শেষ চেষ্টা চালানো হয়েছিল গত ১৭ সেপ্টেম্বর। মঙ্গলবার রাতে। তুমি যেখানে নেমেছ, চাঁদের কক্ষপথে প্রদক্ষিণ করতে করতে গত মঙ্গলবার তার উপরে এসেছিল নাসার পাঠানো উপগ্রহ ‘লুনার রিকনাইস্যান্স অরবিটার’ (এলআরও)। তোমাকে দেখার জন্য অতটা উচ্চতা থেকেও নীচে ‘তাকিয়েছিল’ এলআরও।
১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
neutron star
নিজস্ব প্রতিবেদন
শরীরের টুকরোটাকরার ওজনই যদি এতটা হয়, তা হলে ভাবুন, যে তারাটা মরেছে, সেই নক্ষত্রটা ছিল কত ভারী!
১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
baby cry
নিজস্ব সংবাদদাতা
তা শৈশবেই হোক বা পরিণত বয়সে, আমরা কেঁদে ফেলি মূলত চারটি কারণে। খুব দুঃখ পেলে। খুব রেগে গেলে। গভীর ভালবাসায় হৃদয় টলমল করে উঠলে। আর গভীর আনন্দে। যার একটা আলাদা নামও রয়েছে। আনন্দাশ্রু!
১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
euegene main
নিজস্ব প্রতিবেদন
নশ্বর দেহে চাঁদে পৌঁছতে পারেননি। কিন্তু পৃথিবী থেকে একমাত্র তিনিই চিরঘুমে ঘুমিয়ে আছেন চাঁদের মাটিতে। এই পরম আশ্রয় থেকে কেউ তাঁকে অন্য কোথাও সরাতে পারবে না।
১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
k2-18b
সুজয় চক্রবর্তী
আমাদের সৌরমণ্ডল থেকে ১১০ আলোকবর্ষ দূরের সেই ভিন মুলুকের ভিন গ্রহটি তার নক্ষত্র থেকে রয়েছে সেই দূরত্বে, যেখানে থাকলে গনগনে তাপে জ্বলা তারাটি পুরোপুরি জ্বালিয়ে, পুড়িয়ে দিতে পারে না তার গ্রহটিকে।
১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
Moon
নিজস্ব প্রতিবেদন
উপবৃত্তাকার কক্ষপথের জন্য চাঁদ কখনও পৃথিবীর সামনে আসে, কখনও দূরে চলে যায়। সেই মতো শুক্রবার ১৩ সেপ্টেম্বর চাঁদ পৃথিবী থেকে দূরতম স্থানে অবস্থান করবে। পৃথিবী থেকে চাঁদের দূরত্ব দু’লক্ষ ৫১ হাজার ৬৫৫ মাইল হলেই মাইক্রো ধরা হয়। কিন্তু এবার তার থেকেও ৮১৬ মাইল দূরে থাকবে চাঁদ।
১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
moon
নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লিতে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত কেনজি হিরামাৎসু জানিয়েছেন, ‘‘চন্দ্র অভিযানের প্রশ্নে ভারত যে ভবিষ্যতে তার অবদান রেখে যাবে, সে ব্যাপারে আমরা আত্মবিশ্বাসী। সঙ্গে জাপানের গর্বিত উপস্থিতিও থাকবে।’’
১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
neil-main
নিজস্ব প্রতিবেদন
বিস্ময়কর হলেও সত্যি, চাঁদে পা রাখা প্রথম মানুষের স্পেসস্যুট তৈরি হয়েছিল যন্ত্রে নয়, বরং হাতে। দক্ষ ও প্রশিক্ষিত মহিলা সীবন-কর্মীরা তিলে তিলে সেটা তৈরি করেছিলেন। এতটাই সতর্কতার সঙ্গে, যে বত্রিশ ভাগের মধ্যে এক ভাগ ভুল হলেও তা বাতিল হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা ছিল।
১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
vikram
নিজস্ব সংবাদদাতা
তবে ইতিমধ্যে ইসরো জানিয়েছে, এক বছর কাজ করার কথা থাকলেও অরবিটারটি সাত বছর ধরে কাজ করতে পারবে। কারণ,  সফল ও উন্নত উৎক্ষেপণের ফলে অরবিটারের জ্বালানি কম খরচ হয়েছে এবং কর্মক্ষমতা বেড়ে গিয়েছে।
১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
আরও খবর