×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১০ মে ২০২১ ই-পেপার

ঝুঁকি কমাতে ভাবতে পারেন ডায়নামিক অ্যাসেট অ্যালোকেশন ফান্ডের কথা

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৫:১১


ফাইল চিত্র

সঞ্চয়ে ঝুঁকি তো থাকবেই। আবার সেই সঞ্চয়ের উপর আয় যতটা সম্ভব বাড়ানোর কথাও ভাবতে হবে। তাই ভাবতে পারেন ডায়নামিক অ্যাসেট অ্যালোকেশন ফান্ডের কথা। এই ধরনের ফান্ডে শেয়ার এবং ঋণপত্রে বিনিয়োগ করা হয়।
কী ভাবে কাজ করে এই ফান্ড?
একে সুযোগ সন্ধানী তহবিল বলাই বোধহয় ভাল। এই ফান্ডে শেয়ার এবং ঋণপত্র দু ধরনের সিকিউরিটিজেই বিনিয়োগ করে থাকে। কিন্তু এই বিনিয়োগের কোনও নির্দিষ্ট অনুপাত থাকে না। এর মূল লক্ষ্যই হল বাজারের সুযোগ নিয়ে লগ্নিকারীর আয় বাড়ানো। যখন শেয়ার বাজার রমরমা তখন শেয়ার বাজারই হয় বিনিয়োগের অভিমুখ। আবার যখন শেয়ার বাজারে ডামাডোল, তখন এর বিনিয়োগের অভিমুখ হয় ঋণপত্র।
বিনিয়োগকারীর লাভ
এই জাতীয় ফান্ড যদি ঠিক মতো পরিচালিত হয়, তাহলে বিনিয়োগ করে টাকা হারানোর ঝুঁকি শুধু কমে তাই নয়, আয়ও হয় ঝুঁকির নিক্তিতে মেপে তুলনামূলক ভাবে বেশি। কারণ, আপনার বিনিয়োগ সব সময়ই বাজারে যে লগ্নিতে সব থেকে বেশি আয় সেখানেই লাগানো থাকে।
এই ধরনের ফান্ড বাজারে যে শুধু ঋণপত্র বা শেয়ারে বিনিয়োগ করে তাই নয়, অন্য মিউচুয়াল ফান্ড-সহ সব রকমের বিনিয়োগের সুযোগ নেয়। তাই আপনার বিনিয়োগ এমন ভাবে ছড়িয়ে থাকে যাতে বাজারে প্রায় সব রকম বিনিয়োগের রাস্তাতেই আপনার টাকা লগ্নি করা থাকে। পোর্টফোলিওতে এদের অনুপাত বদলাতে থাকে বাজারের অবস্থাভেদে।
তবুও ঝুঁকি থাকে
মাথায় রাখতে হবে এই ধরনের ফান্ডের সাফল্য নির্ভর করে পরিচালকের দক্ষতার উপর। এবং বাজার সম্পর্কে বিস্তৃত তখ্য এবং তা খতিয়ে দেখে আগাম সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতার উপর। মনে হতেই পারে যে এ তো সব বিনিয়োগের ক্ষেত্রেই প্রয়োজ্য। ঠিকই। কিন্তু যেহেতু এই ফান্ডের লক্ষ্যই হল বিভিন্ন সিকিউরিটিজে টাকা ঘুরিয়ে ঝুঁকিকে একটি নির্দিষ্ট মাত্রায় রেখে বিনিয়োগকারীর আয় বাড়ানো তাই এই জাতীয় ফান্ড পরিচালকের অনেক বিস্তৃত জ্ঞান দাবি করে।
আরও একটা কথা। যেহেতু, এই ফান্ডের চরিত্র যা তাতে ক্রমাগত লেনদেন চলতে থাকে, তাই পরিচালনা বাবদ খরচও এই জাতীয় ফান্ডে অনেক বেশি। আর তাই লাভের অনেকটাই কিন্তু খেয়ে যায় পরিচালনার খরচে। তবে যেহেতু এই জাতীয় ফান্ডের বিনিয়োগ বিস্তৃত তাই বিনিয়োগের ঝুঁকি তুলনামূলক ভাবে কম।

Advertisement
Advertisement