• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

লাইফস্টাইল

জন্মাষ্টমীতে যে ভোগগুলি নিবেদন করলে গোপাল তুষ্ট হন

শেয়ার করুন
১০ Makhan Mishri
মাখন মিছরি: গোপালের ননী চুরির গল্প কারও অজানা নয়৷ তাই তাঁর জন্মদিনে মাখন তো তাঁর মুখে তুলে দিতেই হবে। খাঁটি দুধে তৈরি মাখনের সঙ্গে মিছরি মিশিয়ে তৈরি করা হয় মাখন মিছরি৷
১০ Gpoalkala
গোপালকলা: নারকেল কোরার সঙ্গে ভিজিয়ে রাখা চাল এবং ফল মিশিয়ে তৈরি করা হয় এই বিশেষ ভোগ।
১০ Narkel Naru
নাড়ু: এমনিতে কৃষ্ণকে নাড়ুগোপাল বলে ডাকা হয়। তাই জন্মদিনে নাড়ু অবশ্যই রাখতে হবে প্রসাদে হিসেবে।
১০ Taler Bora
তালের বড়া: বছরের এমন সময় গোপাল জন্মেছিলেন যখন সেটা আবার তাল পাকার সময়ই৷ ফলে তাল ছাড়া কৃষ্ণ পুজো প্রায় অসম্পূর্ণ৷ তাই একেবারে ঘি-এ ভাজা মুচমুচে তালের বড়া দেবতার সামনে থালায় সাজিয়ে রাখতে তো হবেই৷
১০ Kheer
ক্ষীর: ননীর পাশাপাশি গোপালের ক্ষীর খাওয়ার কথা শোনা যায়৷ তাই তাঁর জন্মদিনে ক্ষীরের পায়েস তো রাখতেই হয়৷
১০ Rabri
রাবড়ি: দুধ, দই, মাখনের মতো শ্রীকৃষ্ণের প্রিয় খাবার হল রাবড়ি। তাই জন্মদিনে এটা আর বাদ যাবে কী করে৷
১০ Malai
মালাই: কৃষ্ণের আর একটি প্রিয় খাদ্য হল মালাই।
১০ Mohan Bhog
মোহন ভোগ: এটা হল ঘিয়ে ভাজা সুজির হালুয়া৷ এর সঙ্গে ভোগে লুচি রাখাটাই রেওয়াজ।
১০ Malpua
মালপোয়া: শ্রীকৃষ্ণের প্রিয় খাবারগুলোর মধ্যে অন্যতম মালপোয়া। জন্মাষ্টমীর প্রসাদে তাই রাখতেই হবে মালপোয়া।
১০১০ Shrikhanda
শ্রীখণ্ড: এটি দই দিয়ে তৈরি অপূর্ব এক খাবার। আমাদের রাজ্যে অবশ্য এই খাবারের তেমন চল নেই কিন্তু ভারতের অন্যান্য রাজ্যে জন্মাষ্টমীর দিন শ্রীখণ্ড একেবারে আবশ্যিক।

Advertisement

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন
বাছাই খবর
আরও পড়ুন