• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

দেশ

নাম বিভ্রাট, সোশ্যাল মিডিয়া ভ্রান্তিবিলাসে

শেয়ার করুন
Main
মৃত্যু হয়েছে এক বর্ষীয়ান অভিনেতার। কিন্তু, শুধুমাত্র নামে মিল থাকায় সমবেদনাজানানো হল বর্ষীয়ান এক রাজনীতিকের পরিবারকে। অন্য একটি ঘটনার প্রেক্ষিতে বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন এক জনপ্রিয় গায়ক। কিন্তু একই নাম হওয়ার ‘সুবাদে’ ট্রোলড হয়েছিলেন জনপ্রিয় একঅভিনেতা। সোশ্যাল মিডিয়ায় এমন ‘ভুলের’ সংখ্যা কিন্তু নেহাত কম নয়। কারা রয়েছেন সেই তালিকায়? খোঁজ দেবে গ্যালারির পাতা—
Shashi Kapoor and Shashi Tharoor
শশী কপূর-শশী তারুর: সোমবারের ঘটনা। ওই দিন বিকেলে মুম্বইয়ের কোকিলাবেন হাসপাতালে ৭৯ বছর বয়সে মৃত্যু হয় বর্ষীয়ান বলিউড অভিনেতা শশী কপূরের। এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই অনেকেই শশী কপূরের সঙ্গে তিরুঅনন্তপুরমের কংগ্রেস সাংসদ শশী তারুরকে গুলিয়ে ফেলেন। এর সূত্রপাত এক সাংবাদিকের হাত ধরে। তিনিই কপূরকে তারুর বলে ভুল করে বসেন। এরপর থেকেই শশী তারুরের অফিসে এবং তাঁর পরিবারের সদস্যদের কাছে ফোন করে শোকপ্রকাশ করেন অনেকে।জবাবে তারুর টুইটারে জানান, ‘‘আমার মৃত্যুর খবর অতিরঞ্জিত না হলেও, তা বড্ড আগে প্রকাশিত হয়ে গেল।’’
Sonu Nigam and Sonu Sood
সোনু নিগম-সোনু সুদ: তাঁরা সমনামী। এক জন অভিনেতা সোনু সুদ। অন্য জন, গায়ক সোনু নিগম। দ্বিতীয় জনের কৃতকর্মের ফল ভুগতে হয়েছে প্রথম জনকে। ঘটনাটি গত এপ্রিলের।প্রতি দিন ভোরে মাইকে আজানের শব্দে ঘুম ভাঙায় সোশ্যাল মিডিয়ায় আপত্তি জানিয়েছিলেন গায়ক। প্রশ্ন তুলেছিলেন, ‘এ দেশে কবে জোর করে এ ভাবে ধর্মের সশব্দ ঘোষণা কবে বন্ধ হবে?’ এর পরেই পাল্টা টুইট চলতে থাকে। শুরু হয় সমালোচনাও।গোটা ঘটনায় কোথাও ছিলেন না সোনু সুদ। কিন্তু অনেকেই ভেবেছিলেন এই বক্তব্য সোনু নিগমের নয়, সনু সুদের। পদবির পার্থক্য চোখ এড়িয়ে গিয়েছে অনেকের। এর পর থেকেই ট্রোলড হতে হয় সোনু সুদকে।
Moody's and Tom Moody
মুডি’জ-টম মুডি: ঘটনাটি মাসখানেক আগের। মুডি’জের সমীক্ষা ভারতের অর্থনীতির হাল ভালে বলায় বেজায় চটেছিলেন বামপন্থীরা। কিন্তু সিপিএম সমর্থকেরা ক্ষোভ জানাতে গিয়ে ‘ট্রোল’ করেন প্রাক্তন অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার টম মুডিকে।এরপরেই হায়দরাবাদ সানরাইজার্সের কোচ মুডির ফেসবুক পেজে একের পর এক অশালীন মন্তব্য পোস্ট হতে থাকে। এক জন লেখেন, ‘‘আপনি যে নরেন্দ্র মোদী সরকারের কাছ থেকে কমিশন পেয়ে ভালো রিপোর্ট দিয়েছেন, আমরা কমিউনিস্টরা তা জানি। আপনার লজ্জিত হওয়া উচিত।’’ পরে ভুল ধরিয়ে দেন এক কমরেডই। এর উত্তরে টম জানান, লিখেন, ‘‘যাঁরা বুঝেছেন যে আমি আর্থিক রেটিং এজেন্সির হয়ে কাজ করি না, তাঁদের ধন্যবাদ।’’
Vinod Khanna and Vinod Kambli
বিনোদ খন্না-বিনোদ কাম্বলি: এই ঘটনাটিও ঘটেছিল গত এপ্রিল মাসেই। মারা গিয়েছিলেন বর্ষীয়ান বলিউড অভিনেতা বিনোদ খন্না। কিন্তু শোকপ্রকাশ করা হয়েছিল প্রাক্তন ক্রিকেটার বিনোদ কাম্বলির টুইটার পেজে।এখানেও নাম এক, ভুলও একই।
Snapchat and Snapdeal
স্ন্যাপচ্যাট-স্ন্যাপডিল: ভারত সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য করে বিতর্কের মুখে পড়েছিলেন বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং অ্যাপ স্ন্যাপচ্যাট এবং তার সিইও ইভান স্পিজেল। স্ন্যাপচ্যাট ভারতের মতো গরিব দেশের জন্য নয়, এমন মন্তব্য করেই টুইটার-সহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভারতীয়দের টার্গেট হয়েছিলেন স্পিজেল। টুইটারে স্ন্যাপচ্যাট বয়কট করুন এমনই ডাক দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু নামের মিল থাকায় অনেকেই স্ন্যাপচ্যাটকে স্ন্যাপডিলের সঙ্গে গুলিয়ে ফেলেছিলেন। ফলে বহু ভারতীয়ই সেই সময় স্ন্যাপডিলকে আন-ইনস্টল করতে শুরু করেছিলেন।
Anil Kumble, Zaheer Khan and Sagarika Ghatge
অনিল কুম্বলে-সাগরিকা ঘাটগে: এনগেজমেন্ট সেরে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি দিয়েছিলেন জাহির খান ও সাগরিকা ঘাটগে। অভিনন্দন জানাতে চেয়েছিলেন অনিল কুম্বলে। কিন্তু এখানেই একটা ছোট্ট ভুল করে বসেন তিনি। ‘কনগ্রাচুলেশন’ লিখে জাহির ও সাগরিকাকে ট্যাগ করতে গিয়ে ভুল সাগরিকাকে ট্যাগ করে ফেলেন কুম্বলে। সাংবাদিক সাগরিকা ঘোষকে ট্যাগ করে দেন তিনি। এই নিয়েও শুরু হয়ে যায় ট্রোলিং। কিছুক্ষণের মধ্যেই ভুল বুঝতে পারেন কুম্বলে। অন্যদিকে, সাগরিকা ঘোষও এর উত্তরে মজা করে লেখেন, ‘‘ওওপসস, রং সাগরিকা! ম্যায় দো বচ্চে কি মা হুঁ।’’

Advertisement

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
বাছাই খবর
আরও পড়ুন