পূর্বাঞ্চলীয় জাতীয় র‌্যাঙ্কিং টেবল টেনিস প্রতিযোগিতায় বাংলার ছেলে-মেয়েরা শনিবার সাব জুনিয়র বিভাগে সফল হল। হাওড়ার ডুমুরজোলায় নতুন ভাবে তৈরি স্টেডিয়ামে মোট ১১ জন ছেলে এবং সাত জন মেয়ে পরের রাউন্ডে পৌঁছেছে। 

রাজ্যের দু’জন মন্ত্রী প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করার পরেও স্টেডিয়ামে নানা সমস্যা রয়েছে এখনও। আলো এবং শীততাপ যন্ত্র নিয়ে সমস্যা আছে। সেগুলো দ্রুত সমাধানের চেষ্টা চলছে। তার মধ্যেই অবশ্য পশ্চিমবঙ্গ টেবল টেনিস অ্যাসোসিয়েশন ও উত্তরবঙ্গের খেলোয়াড়েরা একের পর এক ম্যাচে জিতে আলো ছড়াল। নীলিষ্মা সরকার এবং স্নেহা ভৌমিক সরাসরি মূল পর্বে খেলার সুযোগ পেয়েছিল। স্নেহা এ দিন ৩-০ জিতল হার্দি পটেলের সঙ্গে। এবং শেষ ষোলোয় মুখোমুখি হল মহারাষ্ট্র ‘বি’ দলের অনন্যা চান্দির সঙ্গে। কিন্তু হেরে গেল নীলিষ্মা। তামিলনাড়ুর সার্ভানি নাগামের কাছে হারল বাংলার মেয়ে ৩-১ ফলে। মেয়েদের বিভাগে শেষ ষোলোয় পৌঁছল ঐশিকা জোয়ারদার, পৃথা চক্রবর্তী, সায়নীশ চাকি। জিতল সৃজিতা সাউ, সন্দিকা ভট্টাচার্যও জিতল।

ছেলেদের বিভাগে মহারাষ্ট্রের আদিল আনন্দ হারাল বাংলার সৌমিল মুখোপাধ্যায়কে। উত্তেজক ম্যাচে ১১-৯, ৪-১১,৭- ১১, ১১-৯, ১৩-১১ তে জেতে আদিল। মেয়েদের জুনিয়র গার্লস বিভাগে সরাসরি মূল পর্বে গেল মুনমুন কুণ্ডু এবং নিকিতা সরকার। আজ, রবিবার তাদের পরের রাউন্ডে যাওয়ার জন্য লড়তে নামতে হবে। যুব বিভাগে রাজ্য চ্যাম্পিয়ন আকাশ পালের দিকে নজর রয়েছে সবার। আজ আকাশ নামবেন।

সবমিলিয়ে ৪৩ টি রাজ্য ও সংস্থা এ বারের  প্রতিযোগিতায় যোগ দিয়েছে। ১৬০০ প্রতিযোগী যোগ দিয়েছেন। সুতীর্থ মুখোপাধ্যায়-সহ দেশের নামী টিটি তারকারা নামছেন প্রতিযোগিতায়।