নতুন মরসুমে  স্পেনীয় কোচ কিবু ভিকুনার কোচিংয়ে ডুরান্ড কাপ ও কলকাতা লিগে সাফল্য পায়নি সবুজ-মেরুন শিবির।

আগামী মাসেই শুরু হবে আই লিগ। যার প্রস্তুতি হিসেবে বাংলাদেশের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক গোল্ড কাপে খেলতে চট্টগ্রামে গিয়েছে মোহনবাগান। কিন্তু রবিবার সেই প্রতিযোগিতার প্রথম ম্যাচে লাওসের দল ইয়ং এলিফ্যান্টস এফসি-র বিরুদ্ধে হেরে গেল কিবু ভিকুনার দল। তাও আবার শুরুতে এগিয়ে গিয়ে। ম্যাচের ফল ১-২। ম্যাচের শেষ লগ্নে যখন ফল ১-১ সেই সময়ে পেনাল্টি নষ্ট করেন চলতি মরসুমে সবুজ-মেরুন শিবিরে মাঝমাঠের সেরা ফুটবলার জোসেবা বেইতিয়া। আর তার পরের মিনিটেই গোল খেয়ে বসে মোহনবাগান।  

চট্টগ্রামের মাঠে এ দিন পাঁচ বিদেশিকে নিয়ে নেমেছিলেন কিবু। রক্ষণে ড্যানিয়েল সাইরাস। মাঝমাঠে তিন বিদেশি ফ্রান গঞ্জালেস, জোসেবা বেইতিয়া ও জুলেন কলিনাস। ফরোয়ার্ডে সালভা চামোরো। কিন্তু মোহনবাগান রক্ষণে ড্যানিয়েল ও বিক্রমজিৎকে এ দিন মন্থর দেখিয়েছে। বিপক্ষের গতির কাছে বার বার সমস্যায় পড়ছিলেন তাঁরা।

প্রতিপক্ষ ইয়ং এলিফ্যান্টস এফসির বিরুদ্ধে এ দিন আক্রমণাত্মক ভাবে শুরু করেছিল মোহনবাগান। ১৭ মিনিটেই গোল পেয়ে যান  সালভা চামোরোরা।  বেইতিয়ার কর্নার থেকে হেডে গোল করতে গিয়েছিলেন মিডফিল্ডার ফ্রান গঞ্জালেস। কিন্তু তাঁর হেড গোলে না ঢুকে বাইরে যাচ্ছিল। সেই বল লক্ষ্য করে ছুটে এসে হেডেই গোল করেন জুলেন কলিনাস। 

প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার কিছু আগে মাঝমাঠ থেকে লাওসের দলটির মিডফিল্ডার চানথাচোনের বাড়ানো বল ধরেন বিপক্ষের সোমজে। মোহনবাগান গোলকিপার দেবজিত মজুমদারের মাথার উপর দিয়ে সেই বল তুলে দিয়ে সমতা ফেরান তিনি। 

দ্বিতীয়ার্ধে রাইটব্যাট অরিজিৎ বাগুইকে তুলে লালরাম চুলোভাকে নামিয়ে আক্রমণের ঝাঁঝ বাড়ান মোহনবাগান কোচ। খেলা শেষ হওয়ার দুই মিনিট আগে জুলেন কলিনাসকে বিপক্ষ বক্সে ফাউল করা হলে রেফারি পেনাল্টি দেন। কিন্তু বেইতিয়ার সেই পেনাল্টি বাঁচিয়ে দেন বিপক্ষ গোলকিপার। ফিরতি বলে প্রতি-আক্রমণে ডান প্রান্ত থেকে চানথাচোন-এর ক্রস ধরে জয়সূচক গোল করেন ফের সেই সোমজে।