ভারত ১০    •       পোলান্ড ০

আজ়লান শাহ কাপ হকি ফাইনালের আগে রাউন্ড রবিন লিগের শেষ ম্যাচে পোলান্ডকে উড়িয়ে দিল ভারত। অসাধারণ খেলে জোড়া গোল করলেন মনদীপ সিংহ। ভারত জিতল ১০-০। 

ফাইনালে দক্ষিণ কোরিয়ার মুখোমুখি হওয়ার আগের দিন ভারতীয়দের খেলায় ছিল অবিশ্বাস্য আত্মবিশ্বাস। হকির স্বর্ণযুগের মতো ভারতীয় দল কার্যত যখন ইচ্ছে হয়েছে তখনই গোল করেছে। শুধু মনদীপ নয় জোড়া গোল করলেন ড্র্যাগফ্লিকার বরুণ কুমারও। অন্য ছ’টি গোল বিবেক সাগর প্রসাদ, সুমিত কুমার, সুরেন্দ্র কুমার, সিমরনজিৎ সিংহ, নীলকণ্ঠ শর্মা এবং অমিত রোহিদাসের। 

আজ়লান শাহে পাঁচ বারের চ্যাম্পিয়ন ভারত রাউন্ড রবিন লিগ শেষ করল অপরাজিত থেকে। পাঁচ ম্যাচে পয়েন্ট ১৩। চারটি জয়, একটি ড্র। শুক্রবার দু’টি গোল করে মনদীপই প্রতিযোগিতার সর্বোচ্চ গোলদাতা। গোল করেছেন সাতটি। বরুণ পাঁচটি।

ম্যাচ একপেশে হওয়ার প্রত্যাশা ছিলই। বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে ভারতের (৫) থেকে অনেকটা পিছনে পোলান্ড (২১)। ইপোয় শুক্রবার সাত মিনিটে বিবেক ও সুমিতের গোলে ২-০ এগিয়ে যায় ভারত। দ্বিতীয় কোয়ার্টারে ভারতের আক্রমণ তীক্ষ্ণ হয়। সুমিতের জন্য ভারত এই সময় পেনাল্টি কর্নার পায়। যা থেকে গোল করেন বরুণ। পেনাল্টি কর্নার থেকে আরও দু’টি গোল করেন সুরেন্দ্র ও বরুণ। দেখতে দেখতে ভারত এগিয়ে যায় ৫-০ গোলে। শিলানন্দ লাকরা কার্ড দেখে বেরিয়ে না গেলে ভারত হয়তো আরও গোলে জিতত। প্রথমার্ধেই ভারত ৬-০ এগিয়ে ছিল। তৃতীয় কোয়ার্টারে ভারত একটি মাত্র গোল (করেন নীলকণ্ঠ) পেলেও চতুর্থ কোয়ার্টারে তেড়েফুড়ে খেলে আরও তিন গোল করে। 

ম্যাচে মনদীপরা অসাধারণ খেললেও আলাদা প্রশংসার দাবি রাখেন পোলান্ডের গোলরক্ষক পপিয়োলোকস্কি। তিনি বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে নিশ্চিত গোল বাঁচান। বিশেষ করে দু’টি ক্ষেত্রে পপিয়ো অবিশ্বাস্য দৃঢ়তায় গুরসাহিবজিৎ সিংহ এবং সিমরনজিতের শট রুখে দেন। ভারত অষ্টম ও নবম গোল পায় মনদীপের অসাধারণ স্কিলে। 

ইপোয় প্রধান কোচ ছাড়াই যে হকি ভারতীয় দল খেলছে তাতে টোকিয়ো অলিম্পিক্সে যোগ্যতা অর্জনের আশা করা যায়। এখন দেখার শনিবার ফাইনালেও মনদীপ, মনপ্রীতরা এই ছন্দ ধরে রেখে প্রায় এক দশক পরে ভারতকে আজ়লান শাহ কাপ দিতে পারেন কি না। আশাবাদী ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট দাবি করছে, এ বার তাঁরা কাপ জিতবেনই।