ফের ফুটবল খেলতে গিয়ে মৃত্যু হল যুবকের। শনিবার বিকেলে ঘটনাটি ঘটেছে বিধাননগরের স্পোর্টস অথরিটি অব ইন্ডিয়ার (সাই) মাঠে। নিহত যুবকের নাম ঋত্বিক দাস। বয়স ২২। বাড়ি ওড়িশার ভুবনেশ্বরে।

জানা গিয়েছে, ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অফ জুরিডিক্যাল সায়েন্সেস-এর ক্রীড়া উৎসব ‘ইনভিক্টা’ চলছিল সাইয়ের মাঠে। সেখানেই ওড়িশার ন্যাশনাল ল ইউনিভার্সিটি-র হয়ে ফুটবল খেলতে এসেছিলেন পঞ্চম বর্ষের ছাত্র ঋত্বিক। আয়োজকদের তরফে সহকারী অধ্যাপক শৌভিককুমার গুহ আরও জানিয়েছেন, প্রথম রাউন্ডের ম্যাচ খেলার সময় কোনও শারীরিক সমস্যা দেখা যায়নি ঋত্বিকের। কিন্তু দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচ চলাকালীনই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। শুরু হয়ে যায় শ্বাসকষ্ট। এর পরেই জ্ঞান হারান তিনি। দ্রুত অটোরিকশায় রাস্তার উল্টো দিকে একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন ঋত্বিককে। খবর দেওয়া হয় বাড়িতে। দুঃসংবাদ শুনে ভুবনেশ্বরের বাড়ি থেকে কলকাতায় চলে আসেন তাঁর পরিবারের লোকজন।

শনিবার রাতে হাসপাতালের মর্গেই ছিল এই ফুটবলারের দেহ। রবিবার আর জি কর হাসপাতালে ময়নাতদন্তের পরে পরিবারের হাতে মরদেহ তুলে দেওয়া হয়। খেলতে গিয়ে কী ভাবে প্রাণ হারালেন এই ফুটবলার তা ময়না-তদন্তের রিপোর্ট না পেলে জানা যাবে না। পূর্বাঞ্চলীয় সাইয়ের অধিকর্তা মনমিত সিংহ গোয়েন্ডি বলেন, ‘‘দুঃখজনক এই খবরটা পেয়েছি। তবে আয়োজক সংস্থা মাঠ ভাড়া নিয়েছিল। তাই ঘটনার দায় আমাদের নয়। যদিও মেডিক্যাল কর্মীরা প্রাথমিক চিকিৎসার বন্দোবস্ত করেছিলেন।’’ গোটা ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে ক্রীড়া উৎসবে।